fbpx
টাইমলাইনভারত

মুসলিম হয়ে হনুমান পুজো করায় দম্পতিকে মারধর! নিজের লোকেরাই হয়ে উঠেছে প্রাণের শত্রু

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ আগরাঃ হনুমানের পুজো করায় মুসলিম সমাজ দম্পতির প্রাণের শত্রু হয়ে ওঠে। নৌশাদ আর তাঁর স্ত্রীকে হনুমান পুজো করার জন্য মারধর ক্রয়া হয়। তাঁকে পুজো করা আর পুরোহিতের পা ছোঁয়া থেকে আটকানো হয়। নির্যাতিত মুসলিম দম্পতি থানায় অভিযোগ জমা দিয়ে সাহায্যের আর্তি জানিয়েছে। এসপি ওম প্রকাশ সিংকে অভিযোগ জানিয়ে ওই নৌশাদ জানায়, তাঁকে আর তাঁর হনুমান পুজো করায় প্রাণে মারার হুমকি দেওয়া হচ্ছে।

নৌশাদ করহল গ্রামের বজরংবলি মোটা মন্দিরের পাশে থাকে, আর সে রোজই মন্দিরের সাফ সাফাই করে। এর সাথে সাথে সে হনুমানজির পুজোও করে। আর এর জন্যই কয়েকজন মুসলিম ব্যাক্তি তাঁকে প্রায়ই মারধর করে। বিগত ১৭ই ফেব্রুয়ারি থানায় অভিযোগ করে নৌশাদ। আর থানায় অভিযোগ করার জন্য তাঁকে মারধর করা হয়। মুসলিম দম্পত্তি কয়েকজনের নামে অভিযোগ দায়ের করে তাঁদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া আবেদন করেছে।

নৌশাদ জানায়, বিগত কয়েক বছর ধরে সে নেশায় আসক্ত হয়ে পড়েছিল। ডাক্তার, হাকিম সবাইকে দেখিয়েছিল সে, কিন্তু কোন লাভ হয়নি। কেউ তাঁকে মোটা মন্দিরে যাওয়ার পরামর্শ দেয়। নৌশাদ মোটা মন্দিরে যাওয়ার পর থেকেই তাঁর নেশা কেটে যায়। এরপর তাঁর জীবনে অনেক পরিবর্তন আসে। এরপর সে নিজের স্ত্রীকে নিয়ে হনুমানজির পুজো শুরু করে। নৌশাদ জানায়, সবার মালিক এক, বৈষম্য শুধু মানুষই করে।

সুপারিনটেনডেন্ট অফ পুলিশ ওম প্রকাশ সিং জানান, যুবকের অভিযোগ জমা নেওয়া হয়েছে। আর যাঁদের বিরুদ্ধে যুবকের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে থানায়। দোষ প্রমাণিত হলে দোষীদের উপযুক্ত শাস্তি দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

Back to top button
Close
Close