টাইমলাইনভারত

আজান দেওয়া নিয়ে বচসার জেরে মসজিদে ঢুকে মৌলবীকে গলা কেটে হত্যা! গ্রেফতার অভিযুক্ত জলিস আহমেদ

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ উত্তর প্রদেশের রামপুর জেলার নাগালিয়া আকিল মসজিদে আজান দেওয়া ৬২ বছর বয়সী ইমামের গলা কেটে হত্যা করা দেওয়া হয়। ইমামের আর্তনাদ শুনে ওনাকে বাঁচাতে আসা এক মৌলবির উপরেও প্রাণঘাতী হামলা করা হয়। মসজিদের ভিতরে নৃশংস ভাবে হত্যা হওয়ার খবর পাওয়ার পর পুলিশ মহলে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। তৎক্ষণাৎ পুলিশ এসে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় আর অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে এবং মৃতদেহটিকে পোস্ট মর্টেমের জন্য পাঠিয়ে দেয়।

নৃশংস হত্যাকাণ্ড করার পর অভিযুক্ত সেখান থেকে পালানোর ছকে ছিল। কিন্তু গ্রামবাসীরা তাঁকে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে জেলে পাঠায়। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে FIR ও দায়ের করা হয়েছে।

অভিযুক্তের নাম জলিস বলে জানা গিয়েছে। আর মৃত ইমামের নাম সাগির বলে জানা গিয়েছে। পুলিশ জানায়, প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে যে, অভিযুক্ত জলিস মসজিদের ইমামের সঙ্গে সকালের আজান নিয়ে প্রায় দিনই বচসা করত। পুলিশ জানায়, জলিস মসজিদের ইমামকে সরিয়ে সকালে আজান দিতে চেয়েছিল।

এই মর্মান্তিক ঘটনা আজিমনগর থানা এলাকাত নাগালিয়া আকিল গ্রামের। সেখানে ৬০ বছর বয়সী সাগির বেগ গ্রামের মসজিদের রক্ষণাবেক্ষণ করতেন আর আজান দিতেন। বৃহস্পতিবার সাগির বেগ মসজিদে আজান দেওয়ার জন্য গিয়েছিলেন। সেই সময় অভিযুক্ত জলিস আহমেদ চাকু নিয়ে মসজিদে ঢুকে পড়ে আর ইমামের উপর হামলা করে। চাকু দিয়ে নৃশংস ভাবে গলার নলি কেটে ইমামের হত্যা করে জলিস আহমেদ। পুলিশ জানায়, ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ইমামের। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ৩০২ আর ৩০৭ ধারা অনুযায়ী FIR দায়ের করা হয়েছে।

Back to top button