টাইমলাইনভারত

রাম মন্দির নির্মাণের জন্য অর্থ সংগ্রহে এগিয়ে আসুক মুসলিমরাও, আবেদন তসলিমা নাসরিনের

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ বেশকিছুদিন পর আবারও সংবাদ শিরোনামে তসলিমা নাসরিন (taslima nasreen)। বিতর্কিত মন্তব্যরের জেরে আবারও সংবাদ শিরোনামে উঠে এলেন এই লেখিকা। এবার রামমন্দিরকে (Ram temple) কেন্দ্র করে তাঁর এক মন্তব্যে সরগরম হয়ে উঠল নেটপাড়া। তারা মন্তব্যকে কেউ কেউ সমর্থন করলেও, আবার বেশকিছু মানুষ তাঁর মন্তব্যরে পাল্টা জবাব দিলেন।

বহু প্রতীক্ষার পর অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। রামমন্দির নির্মাণের জন্য দেশজুড়ে শুরু হয়েছে অর্থসংগ্রহের কাজ। বিভিন্ন দিক থেকে বিভিন্ন মানুষ এই মন্দির নির্মাণের জন্য নিজেদের সাধ্যমত অর্থ দান করছেন। এই অর্থ সংগ্রহ চলবে আগামী ২৭ শে ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত। রামমন্দির তৈরির কাজে ৫ লক্ষ ১০০ টাকা দিয়েছেন রাষ্ট্রপ্রতি রামনাথ কোবিন্দ। হিন্দু, মুসলিম বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মানুষজন এই মন্দির নির্মানের জন্য অর্থ সাহায্য করেছেন।

রামমন্দির নির্মাণে অর্থ দানের বিষয়ে লেখিকা তসলিমা নাসরিন ট্যুইটে বলেন, ‘অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মানের সাহায্য ভান্ডারে বহু মুসলিম ব্যক্তিও অর্থ সাহায্য করেছেন। ফৈজাবাদের পুরনো বাসিন্দা ওয়াসি হায়দার এবং শাহ বানু দিয়েছেন ১২ হাজার এবং ১১ হাজার টাকা। জনৈক ইকবাল আনসারিও এই তহবিলে অর্থ দান করার কথা বলেছেন। আমার মতে, রামমন্দির নির্মানের অর্থসংগ্রহের কাজে হিন্দু-মুসলিম যত এগিয়ে আসবে, তত দুই সম্প্রদায়ের মধ্যে সম্প্রীতি আরও মজবুত হবে’।

তাঁর এই মন্ত্যবের পর অনেকে তাঁকে সমর্থন করলেও, অনেকের মত মুসলিমদের থেকে রামমন্দির নির্মানের জন্য অর্থ সাহায্য নেওয়া উচিত নয়।

আগেও একবার রামমন্দিরের নির্মানের বিষয়ে সরব হয়েছিলেন তসলিমা নাসরিন। তিনি বলেছিলেন, যদি ভারতের অধিকাংশ হিন্দুরা রামমন্দির নির্মানের পক্ষে থাকে, তাহলে রামমন্দির নির্মান করা উচিত। মুসলমানদের মতো হিন্দুদেরও কট্টরপন্থী এবং ধার্মিক হওয়ার পুরো অধিকার রয়েছে।

Back to top button