টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

প্রথম ইনিংসের থেকে দ্বিতীয় ইনিংস আরও বেশি উজ্জ্বল হবে, মন্ত্রী হয়ে জানালেন বাবুল সুপ্রিয়

বাংলাহান্ট ডেস্ক : বাবুল সুপ্রিয় (Babul Supriyo) মন্ত্রী হবেন। এমন অনুমান করেছিলেন অনেকেই। সেই অনুমানকে সত্যি করেই পশ্চিমবঙ্গের নতুন পর্যটন ও তথ্যপ্রযুক্তি দফতরের (Tourism and IT ministry) দায়িত্ব পেলেন বাবুল সুপ্রিয়। রাজ্যের মন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণের পরই বিজেপিকে কটাক্ষ করতে শুরু করেছেন সদ্য দল বদল করে তৃণমূলে (TMC) আসা বিধায়ক।

বাবুল সুপ্রিয় বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) নেতৃত্বাধীন তৃণমূল সরকারের সঙ্গে তার দ্বিতীয় ইনিংসটি নরেন্দ্র মোদির (Narendra Modi) নেতৃত্বাধীন এনডিএ (NDA) সরকারের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হিসাবে প্রথম ইনিংসের তুলনায় অনেক বেশি উজ্জ্বল হবে। প্রসঙ্গত বাবুল সুপ্রিয়, গত বছর বিজেপি থেকে পদত্যাগ করেন। তাকে সমর্থন করার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ধন্যবাদও জানান।

বুধবার বাবুল বলেন, ‘আমার সত্যিই এই কাকতালীয় ঘটনা সম্পর্কে কোনও রকম ধারণা নেই। হ্যাঁ, জীবন অবশ্যই বৃত্ত সম্পূর্ণ করেছে। গত বছর আগস্টে যখন আমি বিজেপি ছেড়েছিলাম, এবং আজ আমি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মন্ত্রী হিসাবে শপথ নিচ্ছি।’

বুধবার রাজভবনে শপথ নেওয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রিসভায় আট জন নতুন মুখের মধ্যে রয়েছেন বাবুল সুপ্রিয়ও। বাবুল বলেন ‘দিদির হাত ধরেই এসেছে পোয়েটিক জাস্টিস। আমি রাজনীতি ছেড়েই দিয়েছিলাম। তখন তিনিই আমাকে উৎসাহিত করেন, আমাকে সাহস দেন এবং আমাকে বালিগঞ্জ আসনের প্রার্থী হিসাবে মনোনীতও করেন। তারপরে পুরো তৃণমূল দল আমাকে সমর্থন করেছিল।‘

গত বছর তাকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা থেকে বাদ দেওয়ার পরই, সুপ্রিয় ঘোষণা করেন যে তিনি রাজনীতি ছেড়ে দেবেন। কিন্তু পরে লোকসভার সদস্য হিসাবে পদত্যাগ না করার কথা বলেন তিনি। এরপর গত সেপ্টেম্বরে টিএমসি-তে যোগ দেন।

তিনি বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গের মানুষের উন্নয়নের জন্য আমি কঠোর পরিশ্রম করব। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হিসেবে আমার আগের অভিজ্ঞতা থেকে যা কিছু শিখেছি তার সবই উজাড় করে দেবো। আমার এই দ্বিতীয় ইনিংসকে আরও উজ্জ্বল করে তুলব।‘

তিনি আরও বলেন, ‘আমি হয়তো কিছু ভুল করেছিলাম। কিন্তু ২০১৪ সাল থেকে আমি আমার সবকিছু দিয়েছি। বিজেপিতে আমার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করা হয়। পশ্চিমবঙ্গের কেউ পূর্ণ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হতে পারে না?’ অনেকটা অভিমান থেকেই বিজেপি ছাড়েন বাবুল। তারপরই তৃণমূলে যোগ দিয়ে বালিগঞ্জ থেকে বিধায়ক এবং গতকাল বিজেপি ছাড়ার পুরস্কার হিসাবে পেলে রাজ্যের মন্ত্রীত্ব।

Related Articles