টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

১ কোটির লটারি ৫ লাখ দিয়ে কেড়ে নিয়েছিল! অনুব্রত কাণ্ডে বিস্ফোরক আসল টিকিট বিজেতা

বাংলাহান্ট ডেস্ক : শুধু গরু পাচার নয়, গরীব মানুষের জেতা লটারির টাকাও হাতিয়েছে কেষ্ট। অনুব্রত মণ্ডলের (Anubrata Mondal) ১ কোটি টাকা লটারির (Lottery) উৎস কী? তা জানতেই আবারও বৃহস্পতিবার বোলপুরের কাছে নানুরে পৌঁছয় সিবিআইয়ের (CBI) টিম। ওই ১ কোটি টাকার লটারি আদতে যিনি পেয়েছিলেন সেই নূর আলির বাড়িতে গিয়ে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন সিবিআই আধিকারিকরা।

এরপরই সংবাদমাধ্যমের সামনে বিস্ফোরক দাবি করেন নূর আলির বাবা কটাই শেখ। এদিন তিনি দাবি করেছেন, ১ কোটি টাকা লটারিতে জেতার পর তৃণমূলের লোকজন তাঁকে হুমকি দিতে শুরু করে। অবস্থা এমন পর্যায়ে পৌঁছায় যে সাত আট দিন তিনি বাড়িতে খেতে পর্যন্ত আসতে পারেননি। পালিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছিলেন। তার পর নামমাত্র টাকায় ওই লটারির টিকিট দিয়ে দিতে তিনি বাধ্য হন বলে। সংবাদমাধ্যমের কাছে কটাই শেখ একবার দাবি করেন যে ৫-৬ লক্ষ টাকা তাঁকে দেওয়া হয়েছিল। পরে আবার বলেন, না এ নিয়ে কিছু বলব না। তবে কটাই এটা জানান যে, জনৈক গাঙ্গুলি নামে এক লোক তাঁকে লটারির টিকিটটি দিয়ে দেওয়ার জন্য হুমকি দিচ্ছিল।

কটাই শেখ ও তাঁর ছেলের বাড়ি নানুর থানার বড় শিমুলিয়া গ্রামে। এদিন প্রথমে নূরের বাড়ি যায় সিবিআই টিম। পরে তাঁকে রতনকুঠির ক্যাম্প অফিসে ডেকে পাঠানো হয়। নূরকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন সিবিআই আধিকারিকরা।

কটাই শেখের এই চাঞ্চল্যকর দাবি নিয়ে স্থানীয় তৃণমূল নেতারা কোনও প্রতিক্রিয়া দেয়নি। তবে বিজেপি ইতিমধ্যে প্রতিবাদ জানাতে শুরু করেছে। জেলা বিজেপি মুখপাত্র এদিন বলেন, ‘অনুব্রত যে হুমকি দিয়ে ভয় দেখিয়ে লোকের থেকে টাকা পয়সা, গাড়ি, জমি, চালকল কেড়ে নিতেন তা পরিষ্কার হয়ে গেছে। কদিন আগে টিভিতেই দেখা গিয়েছে যে এক ঠিকাদার খোলাখুলি বলছেন অনুব্রত (Anubrata Mondal) তাঁকে ভয় দেখিয়ে কয়েক কোটি টাকা নিয়েছিলেন। শুধু তাই নয়, অনুব্রত এভাবেই চালকল কিনেছেন একের পর এক। এবার দেখা যাচ্ছে, গরিব মানুষের লটারির টাকাও মেরে দিয়েছেন।’

Related Articles