fbpx
টাইমলাইনভারত

প্রধানমন্ত্রী আমাকে জড়িয়ে ধরায় আমি অনেক সাহস পেয়েছিলাম- বললেন ISRO প্রধান কে সিভান

২০১৯ সালটা ভারতীয়দের কাছে যথেষ্টই গুরুত্বপূর্ণ বছর হয়েছিল। বিশেষত ভারতের আমজনতা এবং ইসরোর কাছে এটি ছিল একটি বিশেষ বছর। সেপ্টেম্বর মাসে চন্দ্রায়নের বিষয় নিয়ে সবাই বেশ উৎকণ্ঠায় ছিল। এখানেই শেষ নয় দীর্ঘদিনের প্রচেষ্টার পর চাঁদে সফলভাবে কোন  যানকে পাঠানো সম্ভব হয়ে। কিন্তু শেষ রক্ষা যদিও হয়নি কেননা তারপর চাঁদে পৌঁছানোর পর থেকেই ল্যান্ডার বিক্রমের কোন হদিশ মিলছিল না।

এরপর এই মিশন কে ব্যর্থ  মিশন বলেই মেনে নেয় ইসরো । আর এই মিশনের ব্যর্থতা শুধু ভারতীয় নয় আর বিশেষ ভাবে দাগ কাটে ইসরো র কর্মকর্তাদের মনে। ইসরোর প্রধান কে শিভান ভীষণভাবে ভেঙ্গে পড়েন । কেননা এই মিশন একটা দীর্ঘদিনের অপেক্ষা ছিল বলা যেতেই পারে। কিন্তু মিশন ব্যর্থ হওয়ার পরেও খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এসে দেখা করেন কে সিভানের সঙ্গে।

তিনি এক সাক্ষাৎকারে জানান কিভাবে মোদীর এই  ব্যাবহার তার ভারাক্রান্ত হৃদয়কে সারিয়ে তুলেছিল । এই মিশন ব্যর্থতার পরে স্পেস এজেন্সির হেডকোয়ার্টারে অর্থাৎ ব্যাঙ্গালুরুতে গিয়ে তিনি দেখা করেন কে সিভানের সাথে। কে সিভানের সাথে সেই আলিঙ্গনের মুহূর্ত খুব তাড়াতাড়ি ভাইরাল হয়ে পরে নেট দুনিয়ায়। এমনকি নেটিজেনদের কাছেও এই ছবি একটি দৃষ্টান্তমুলক বার্তা দেয়। এখানেই শেষ নয় , এই ছবি মানুষের মনে দাগ কাটার পাশাপাশি সিভানের মনেও সারা ফেলে।

NDTV’র কাছে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে তিনি জানান ‘মোদীজি একমাত্র আমার মনের অবস্থাটা বুঝতে পেরেছিলেন, তিনি একবারের জন্যেও আমার অপর কোন কর্তৃত্ব ফলায়নি। তিনি শুধু বোঝার চেষ্টা করেছিলেন এবং পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছিলেন। যেটা আমার কাছে সান্তনা পুরষ্কারের থেকেও বেশী ছিল “।চাঁদের বুকে চন্দ্রযান-২ এর পাঠানোর বিষয়টি ছিল একটা ঐতিহাসিক ভাবনা। আর এই ব্যর্থতার পরে প্রধানমন্ত্রীর এইভাবে পাশে থাকাটা বিজ্ঞানীদের কাছে পরম পাওনা বলে জানিয়েছেন কে সিভান।

Back to top button
Close