টাইমলাইনভারতভাইরালভিডিওরাজনীতি

‘ডাক্তার হতে চায় মেয়ে’, সমস্ত সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিয়ে আবেগপ্রবণ প্রধানমন্ত্রী

বাংলাহান্ট ডেস্ক : গুজরাটের ভারুচে একটি অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি অংশ নিয়ে বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলার সময় রীতিমতো আবেগপ্রবণ হয়ে পড়লেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বাকরুদ্ধ হয়ে গেলেন তিনি। ওই ব্যক্তির মেয়েকে চিকিৎসক হওয়ার জন্য যাবতীয় সাহায্য করার প্রতিশ্রুতিও দিলেন প্রধানমন্ত্রী।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমেই গুজরাটের ভারুচে ‘উৎকর্ষ সমারোহ’ নামের একটি সরকারি অনুষ্ঠানে অংশ নেন নরেন্দ্র মোদী। সেখানেই তিনি কথোপকথন চালাচ্ছিলেন স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে। ওই অনুষ্ঠানে আয়ুব প্যাটেল নামের এক ব্যক্তি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার সময় জানান, তাঁর চোখের সমস্যা দেখে তাঁর মেয়ে ডাক্তার হতে চায়। মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে তাঁর মেয়েরা স্কলারশিপ পেয়েই পড়াশোনা করছে বলেও জানান ওই ব্যক্তি।

এরপরই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন প্রধানমন্ত্রী। ওই ব্যক্তির মেয়ের সঙ্গে কথা বলা কালীন কার্যতই বাকরুদ্ধ হয়ে যান তিনি। মেয়েটির চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্নকে কুর্ণিশ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘বেটি, তোমার বাবার কষ্ট দেখে এই যে তোমার সহমর্মিতা, এটাই তোমার সবচেয়ে বড় শক্তি।’ এরপর আয়ুব প্যাটেল নামক ওই ব্যক্তিকে প্রধানমন্ত্রী জানান, মেয়ের স্বপ্নপূরণে যে কোনওরকম সাহায্য দরকার হলে তাঁকে জানাতে। প্রধানমন্ত্রীর এহেন মন্তব্যে কার্যতই আপ্লুত ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকলেই।

প্রসঙ্গত, ভারুচের এই অনুষ্ঠানটি জেলার চারটি মূল সরকারি প্রকল্পের ১০০% সম্পুর্ণতা উদযাপনের জন্যই ছিল। ওই চার প্রকল্পের অধীনেই সরকারি ভাবে আর্থিক সাহায্য পাচ্ছেন পিছিয়ে পড়া পরিবারগুলি।

এদিন প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘সরকারি প্রকল্পগুলি সম্পর্কে সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতার অভাব রয়েছে। ফলে সেগুলি হয় কাগজে-কলমে রয়ে যায়, নয় তো যোগ্য ব্যক্তিরা এগুলির সুবিধা পান না।’ সেই কারণেই এবার প্রকল্পগুলিকে মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে দিতে উদ্যোগী হচ্ছে গুজরাট প্রশাসন।

Related Articles

Back to top button