টাইমলাইনবিনোদন

মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা! ছেলে জেলে যাওয়ার পর শাহরুখের গাড়ির ড্রাইভারকে তলব NCB র

বাংলাহান্ট ডেস্ক: বিপদ পিছু ছাড়ছে না খান পরিবারের। ছেলে আরিয়ান খান মাদক কাণ্ডে গ্রেফতার হতেই একটি বড় ব্র‍্যান্ড তাঁদের বিজ্ঞাপনের মুখ থেকে ছেঁটে ফেলেছেন শাহরুখ খানকে (shahrukh khan)। শোনা যাচ্ছে, এতে কোটি টাকার ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারেন বলিউড বাদশা। এবার মাদক কাণ্ডে নারকোটিকস কন্ট্রোল ব‍্যুরোর জেরার সম্মুখীন হলেন কিং খানের গাড়িচালক।

মাদক মামলায় শাহরুখের গাড়ির ড্রাইভারকে সমন পাঠিয়েছিল NCB। সেই মতো তদন্তকারী আধিকারিকদের প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হচ্ছে তাঁকে। জানানো হয়েছে, তদন্তের জন‍্য জরুরি এই জেরা পর্ব। আরিয়ান আগে থেকেই মাদক সেবনের সঙ্গে যুক্ত ছিল কিনা বা কোনো মাদক ব‍্যবসায়ীর সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ ছিল কিনা সেটা জানার জন‍্যই এই জেরা।


৭ অক্টোবর আরিয়ানদের ১৪ দিনের জেল হেফাজতের রায় দিয়েছিল ম‍্যাজিস্ট্রেট কোর্ট।
এদিন NCB র তরফে অ্যাডিশনাল সলিসিটর জেনারেল অফ ইন্ডিয়া, অনিল সিং দাবি করেন অভিযুক্তদের জামিনের আবেদন অস্পষ্ট এবং গ্রহণযোগ‍্য নয়। সেটা আদালত বিচার করুন।

আরিয়ানের হয়ে আদালতে সওয়াল জবাব করেন আইনজীবী সতীশ মানশিন্ডে। তিনি পালটা দাবি করেন, NCB ক্রুজ পার্টিতে আরিয়ানকে মাদক সেবন করতে দেখেছে কিন্তু তাঁর কাছ থেকে কোনো মাদক উদ্ধার হয়নি। এমনকি যে হোয়াটস অ্যাপ চ‍্যাটের কথা NCB দাবি করছে সেটিও মাদক সংক্রান্ত নয়, ফুটবল সংক্রান্ত।

আদালতে ক্ষোভ উগরে দেন আরিয়ানও। তাঁর অভিযোগ, ক্রুজে ১৩০০ জন লোক ছিল। কিন্তু NCB বেছে বেছে তাঁদের মতো ১৭ জনকে কেন গ্রেফতার করল? তিনি জানিয়েছেন, প্রতীক নামের এক বন্ধু পার্টির উদ‍্যোক্তাদের সঙ্গে আলাপ করায় তাঁর। আরিয়ান আসলে পার্টির গুরুত্ব বাড়বে, এই অনুরোধেই আসতে রাজি হয়েছিলেন তিনি। ক্রুজে হানা দিয়েই তাঁর ব‍্যাগ তল্লাশি করেছিল NCB। কিন্তু কোনো মাদক পাওয়া যায়নি, এমনি দাবি আরিয়ানের। যদিও লাভের লাভ কিছুই হয়নি। শুক্রবারই আর্থার রোড জেলে ঠাঁই হয় আরিয়ানদের।

Related Articles