fbpx
টাইমলাইনবিনোদন

বিয়ে না করেই মা হওয়া উচিত হয়নি, আক্ষেপ নীনা গুপ্তার

বাংলাহান্ট ডেস্ক: জীবনে চিরকালই ব্যতিক্রমী ধারনায় বিশ্বাস করে এসেছেন তিনি। নিজের মতো করেই জীবনটাকে বেঁচে এসেছেন। নিজের মতামতের ওপর সম্পূর্ণ বিশ্বাস ছিল তাঁর। তিনি নীনা গুপ্তা। আটের দশকেও ‘সিঙ্গল মাদার’ হওয়ার ‘দুঃসাহস’ দেখিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু এই বয়সে এসে তাঁর গলায় শোনা গেল অন্য সুর। বিয়ের আগেই মা হয়ে ঠিক কাজ করেননি, এমনই আক্ষেপ শোনা গেল নীনার গলায়।

কঙ্গনা রানাওয়াতের সঙ্গে ‘পাঙ্গা’ ছবিতে দেখা যাবে নীনাকে। সেই প্রসঙ্গেই এক সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে সাক্ষাৎকার দেন নীনা। সেখানেই নিজের সিঙ্গল মাদার হওয়া নিয়ে আক্ষেপ করতে শোনা যায় তাঁকে। কিন্তু যিনি এতদিন নিজের মতো করে জীবনটা চালিয়ে এসেছেন, সমাজের পরোয়া না করে নিজের ইচ্ছামতো স্বাধীন ভাবে বেঁচেছেন তাঁর মুখে হঠাৎ এমন কথা কেন? উত্তরে অভিনেত্রী বলেন, “সন্তানের মা-বাবা দুজনের আশ্রয়ই প্রয়োজন হয়। মাসাবাকে আমি একা বড় করেছি। কিন্তু ওর সঙ্গে আমার ও ভিভ দুজনের সম্পর্কই খুব ভাল। তাও আমি জানি ওর শৈশব সুখের হয়নি।”

প্রসঙ্গত, ১৯৮০ সালে প্রখ্যাত ক্রিকেটার ভিভ রিচার্ডসের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান নীনা। সমাজের কথা না ভেবে নিজেদের সম্পর্কটাকে সকলের সামনে নিয়ে আসেন তিনি। তবে দুজনের কেউই বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হতে চাননি। এর ৯ বছর পর জন্ম হয় নীনা ও ভিভের একমাত্র সন্তান মাসাবার। তাকে একাই বড় করেছেন অভিনেত্রী। এই নিয়ে তাঁকে গর্বও করতে শোনা গিয়েছে আগে।

তবে মেয়ে বড় হওয়ার পর সংসার শুরু করেন নীনা গুপ্তা। দিল্লির চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট বিবেক মিশ্রর সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তিনি। সংসারও করেছেন চুটিয়ে। পাশাপাশি নিজের কেরিয়ারের দিকেও খেয়াল ছিল তাঁর। সম্প্রতি ‘বাধাই হো’ ছবির জন্য ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন নীনা গুপ্তা।

Close
Close