টাইমলাইনবিনোদনছবি

প্রিয়াঙ্কা ও নিক দত্তক নিলেন ছোট্ট সদস‍্যকে, প্রকাশ‍্যে নতুন অতিথির ছবি

বাংলাহান্ট ডেস্ক: ২০১৮ তে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন নিক জোনাস (nick jonas) ও প্রিয়াঙ্কা চোপড়া (priyanka chopra)। নিজের থেকে বয়সে ছোট নিককে বিয়ে করায় বহু সমালোচনার মুখোমুখি হতে হয়েছিল প্রিয়াঙ্কাকে। এমনকি এখনও তাঁদের নিয়ে ট্রোল অব্যাহত রয়েছে। তবে সেসবকে কোনও কোনওদিনই পাত্তা দেননি অভিনেত্রী। একে অপরের সঙ্গে দিব্যি সুখেই রয়েছেন। সংসারও করছেন চুটিয়ে।
এবার প্রিয়াঙ্কা ও নিকের ও সংসারে আগমন ঘটেছে এক নতুন অতিথির। নতুন সদস‍্যকে নিয়েই আপাতত ব‍্যস্ত রয়েছেন প্রিয়াঙ্কা ও নিক। জানা গিয়েছে, খুদে অতিথিকে দত্তক নিয়েছেন তাঁরা। আদর করে তায নাম রেখেছেন পান্ডা। নতুন সদস‍্যের বয়স এখন মাত্র কয়েকদিন হলেও সে যে খুব তাড়াতাড়ি বড় হয়ে যাবে তাও জানিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা।


আসলে এই নতুন সদস‍্য হল নিক প্রিয়াঙ্কার পরিবারে ছোট্ট পোষ‍্য। প্রিয়াঙ্কা জানিয়েছেন, পান্ডা হল হাস্কি ও অস্ট্রেলিয়ান শেপার্ডের মিশ্র সংষ্করণ। কয়েক সপ্তাহ আগেই তাকে দত্তক নিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা ও নিক। পান্ডার কয়েকটি ছবিও সোশ‍্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন তিনি। পান্ডার আগে জিনো ও ডায়ানা নামেও দুই পোষ‍্য রয়েছে তাঁদের।

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই বিহার ও অসমের বন‍্যাত্রাণে অনুদান দিয়ে সাহায‍্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ও নিক জোনাস। টুইট করে অসমের বন‍্যা ত্রাণে সাহায‍্যের হাত বাড়ানোর জন‍্য অনুরাগীদের অনুরোধ করেন প্রিয়াঙ্কা। তিনি লেখেন, ‘বিশ্বব‍্যাপী মহামারির মধ‍্যে ভারতের রাজ‍্য অসমের ওপর আরও এক বিপর্যয় নেমে এসেছে। ভারী বৃষ্টিপাতের জন‍্য ভয়ানক বন‍্যার পরিস্থিতি হয়েছে সেখানে। লক্ষাধিক মানুষের প্রাণহানির আশঙ্কা রয়েছে। বাড়িঘর, সম্পত্তির ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণের আন্দাজ করাও কঠিন। বিশ্বের অন‍্যতম অভয়ারণ‍্য কাজিরাঙ্গা ন‍্যাশনাল পার্কও বন‍্যা কবলিত।’

প্রিয়াঙ্কা আরও লেখেন, ‘আমাদের সাহায‍্যের দরকার ওদের। এখানে কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের তথ‍্য দিচ্ছি আমি যারা অসমে খুবই ভাল কাজ করছে। আমি ও নিক দুজনেই ত্রাণে অনুদান দিয়েছি। আমরা ওদের সাহায‍্য করলে ওরা দুর্গতদের সাহায‍্য করতে পারবে।’
বিহারের মেয়ে প্রিয়াঙ্কা সাহায‍্যের হাত বাড়িয়েছেন বিহারের বন‍্যা ত্রাণেও। টুইটে তিনি লেখেন, ‘ভারী বর্ষার কারনে ভারতের ভারতের বহু রাজ‍্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমার জন্মভূমি বিহারেও অত‍্যধিক বৃষ্টিপাতের জন‍্য বন‍্যার পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। অসমের মতোই বহু মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন, অনেকে বাড়িছাড়াও হয়েছেন। আমাদের সাহায‍্য দরকার তাদের। ইতিমধ‍্যেই আমি ও নিক কয়েকটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাকে অনুদান দিয়েছি যারা সেখানে সক্রিয় ভাবে বন‍্যা ত্রাণে সাহায‍্য করছে। এবার আপনাদের পালা।’

Back to top button