টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

কার্গিল থেকে ধরে সুদীপ্ত সেনকে জেলে ঢোকান মমতা, কোনও অপরাধী রেহাই পাবে না : অভিষেক

বাংলাহান্ট ডেস্ক : অপরাধীদের যে কোনও মতেই রেয়াত করবে না বাংলার সরকার এবার এমনটাই সাফ জানিয়ে দিলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার ডায়মন্ড হারবারে জেলা পুলিশের একটি দপ্তরের উদ্বোধনে গিয়ে এবার রাজ্যের শাসন ব্যবস্থা এবং অপরাধদমন নীতি নিয়ে মুখ খুললেন তৃণমূল নেতা। অপরাধ করলে কারওই রেহাই নেই পশ্চিমবঙ্গে এমনই দাবি করতে শোনা গেল তাঁকে।

এদিন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘ বাংলায় প্রায় দুই কোটি পরিবার রয়েছে। কোথাও একটা ঘটনাও যাতে না ঘটে সেদিকে আমাদের দেখতে হবে। কোথাও কোনও ঘটনা ঘটুক আমরা চাই না। কিন্তু ঘটে গেলে প্রশাসন পদক্ষেপ করছে কি না সেটা দেখার। এখানে যা ঘটছে, প্রশাসন সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নিচ্ছে।’ একই সঙ্গে তাঁকে আরও বলতে শোনা যায়, ‘সুদীপ্ত সেনের মতো ক্রিমিনালকে যদি কাশ্মীরের কার্গিল সীমান্ত থেকে ধরে জেলে ভরতে পারে, তাহলে কটা অপরাধ করে কেউ কাকদ্বীপ থেকে কোচবিহার যেখানেই পালাক রেহাই পাবে না।’

এদিন রাজ্যের একাধিক মামলার কথা মনে করিয়ে তিনি বলেন, ‘এই তো মগরাহাটে ঘটনা ঘটিয়ে ভেবেছিল পালিয়ে যাবে। কিন্তু পরের দিনই ধরা পড়েছে। অন্য রাজ্যে একের পর এক ঘটনা ঘটলেও ব্যবস্থা নেয় না। সুপ্রিম কোর্টকে হস্তক্ষেপ করতে হয়। কিন্তু বাংলায় সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা হয়।’ সেই সঙ্গে বাংলা নিয়ে তিনি মন্তব্য করেন, ‘হোয়াট বেঙ্গল থিংকস টুডে, রেস্ট অফ দ্যা বেঙ্গল থিংকস টুমরো।’

রাজ্যে ঘটেই চলেছে একের পর এক সন্ত্রাস, খুন, জখম এবং অপরাধের ঘটনা। লাগাতার বেড়ে চলা অপরাধের কারণে বারবার রাজ্যের শাসকদলকে কাঠগড়ায় তুলেছে বিরোধী শিবির। তাই সেই সমস্ত বিষয়েও পুলিশকে সতর্ক করে দিয়েছেন ডায়মণ্ড হারবারের সাংসদ। পুলিশকে উদ্দ্যেশ্য করে তিনি বলেন, ‘প্রশাসনকে নজরদারি আরও বাড়াতে হবে। একটিও ঘটনা যাতে না ঘটে সেদিকে আমাদের নজর রাখতে হবে। পৌর এলাকা, পঞ্চায়েত এলাকা সর্বত্রই নজরদারি করতে হবে পুলিশকে।’ সব মিলিয়ে তৃণমূল নেতার এহেন মন্তব্যকে কার্যতই অতিমাত্রায় তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছেন পর্যবেক্ষক মহল।

Related Articles

Back to top button