টাইমলাইনবিনোদনরাজনীতি

‘মন্দির মসজিদ দুটোই বেছে নিলাম’, রাম মন্দির প্রসঙ্গে সম্প্রীতির সুর নুসরতের গলায়

বাংলাহান্ট ডেস্ক: দীর্ঘদিনের অপেক্ষার পর অবশেষে ৫ অগাস্ট সম্পন্ন হল অযোধ‍্যার রাম মন্দিরের (ram mandir) ভূমি পূজা (bhumi pujan)। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) করলেন মন্দিরের শিলান‍্যাস। এমন দিনে সম্প্রীতির বার্তা শোনা গেল তৃণমূল (tmc) সাংসদ নুসরত জাহানের (nusrat jahan) গলায়ও। ধর্মীয় বিতর্ককে প্রশ্রয় না দিয়ে তিনি মন্দির মসজিদ উভয়ের পক্ষেই রায় দিলেন।
দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে চলা আইনি টানাপোড়েন, তারও আগে থেকে প্রায় পাঁচ দশক ধরে চলে আসা ঐতিহাসিক বিতর্কে সুপ্রিম কোর্টের রায় কিন্তু পুরোপুরি ইতি টানতে পারেনি। বুধবার রাম মন্দিরের ভূমি পূজা সফল ভাবে হলেও সোশ‍্যিল মিডিয়ায় এখনও অব‍্যাহত রয়েছে বিতর্ক। মন্দির মসজিদ হাসপাতাল, ভিন্ন মানুষের ভিন্ন রায়‍। কিন্তু এসবে দাঁড়ি টেনে নুসরত সাফ জানালেন মন্দির মসজিদ দুটোই বেছে নিলেন তিনি।


এদিন ফারাহ খান একটি টুইট করেন। তিনি লেখেন, ‘মন্দির বা মসজিদকে সমর্থন করা মানে যে কোনও একটি দিক বেছে নেওয়া কেন হবে। আমি দুটোকেই সুন্দর ধর্মীয় স্মৃতিস্তম্ভ হিসাবে দেখি। সবকিছু এখন এত রাজনৈতিক কেন? আমরা কি ভাল সবকিছুই হারিয়ে ফেলেছি। কোনও একটা কেন বাছতে হবে। দুটোকেই কেন সমান সম্মান ক‍রা যায় না। আমি করি।’

ফারাহর এই টুইটকে সমর্থন করেই নুসরত লিখেছেন, মন্দির মসজিদ আমি দুটোই বেছে নিলাম। এই বিষয়ে তৃণমূল সুপ্রিমো মুখ‍্যমন্ত্রী মমতা বন্দ‍্যোপাধ‍্যায়ের সুরেও সুর মিলিয়েছেন নুসরত। মুখ‍্যমন্ত্রী টুইটারে লেখেন, ‘হিন্দু, মুসলিম, শিখ, খ্রিস্টান একে অপরের ভাই ভাই। আমার ভারত মহান, মহান আমার হিন্দুস্তান। আমাদের দেশ তার চিরায়ত বৈচিত্রের মধ‍্যে ঐক‍্যের ঐতিহ‍্যকে বহন করে চলেছে এবং আমাদের শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত ঐক‍্যবদ্ধভাবে এই ঐতিহ‍্যকে সংরক্ষিত রাখব।’

প্রসঙ্গত, নুসরত প্রথম থেকেই সম্প্রীতির বার্তাই দিয়ে এসেছেন। ইদেও যেমন সকলকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তেমনই প্রতিবার রথযাত্রা, দূর্গাপুজোতেও অংশগ্রহণ করতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। তবে এসবের জন‍্য কম সমালোচনার মুখে পড়তে হয়নি নুসরতকে। নিখিল জৈনকে বিয়ে করা বা দূর্গাপুজোয় সিঁদুর খেলা সবেতছি চোখ রাঙিয়েছেন মৌলবাদীরা। তবে তাতে কখনওই বিশেষ পাত্তা দেননি নুসরত।

Back to top button
Close