টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

ভোট পরবর্তীতে ছড়িয়ে পড়েছে হিংসার আগুন, প্রতিবাদে মমতার শপথের দিন দেশজুড়ে ধর্নার ডাক বিজেপির

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বিপুল ব্যবধানে জয় ছিনিয়ে নেন তৃণমূল (tmc) শিবির। বুধবার আবারও মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেবেন মমতা ব্যানার্জি (Mamata Banerjee)। আর সেইদিনই করোনা বিধি মেনেই দেশজুড়ে ধর্নার বসতে চলেছে বিজেপি (bjp) শিবির। কারণ, ভোটের ফলাফল ঘোষণার পর থেকে লাগামহীন সন্ত্রাস চলছে বাংলায়। এখনও অবধি তৃণমূলের দুস্কৃতীদের হাতে নিহত হয়েছেন ৯ জন বিজেপি কর্মী।

রবিবার ভোট গণনার দিন সকাল থেকেই ফলাফল তৃণমূলের পক্ষ ছিল। তবে গোটা বাংলা জুড়ে তৃণমূল জিতে গেলেও, নন্দীগ্রামে সামান্য ভোটের ব্যবধানে হলেও জয়ী হন বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী। তবে এই পরাজয় মেনে নিলেও, নন্দীগ্রামের ভোট আবারও গণনার আর্জি জানিয়েছিলেন মমতা ব্যানার্জি। কিন্তু তাঁর সেই আর্জি খারিজ করে দেয় নির্বাচন কমিশন।

নির্বাচনে জয়লাভ করে আবারও ফুল ফর্মে ফিরে আসে তৃণমূল। বাংলায় ফের দেখা দেয় সন্ত্রাসের চিত্র। দিকে দিকে অশান্তির খবর সামনে আসতে থাকে। ভোট পরবর্তী হিংসার রাজনীতি সব জেলাতেই দেখা যাচ্ছে। ইতিমধ্যেই ৯ জন বিজেপি কর্মীকে খুনের অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে। এই পরিস্থিতিতে দিলীয় কর্মীদের পাশে দাঁড়াতে মঙ্গলবার অর্থাৎ আজই রাজ্যে আসছেন সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা (JP Nadda)। এমনকি রাজ্য সরকারের কাছে ভোট পরবর্তী হিংসার কারণ জানতে চেয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

এইভাবে চলতে থাকা হিংসার আগুনের মাঝে আজই দুপুর ১২ টার মধ্যে কলকাতায় পা রাখবেন জেপি নাড্ডা। জানা গিয়েছেন তিনি আগামীকাল অর্থাৎ বুধবার অবধি রাজ্যে থাকবেন। সেইসঙ্গে এই হিংসার রাজনীতির প্রতিবাদে বুধবার মুখ্যমন্ত্রী পদে মমতা ব্যানার্জির শপথ গ্রহণের দিনই দেশজুড়ে ধর্নার ডাক দিয়েছে বিজেপি শিবির।

Back to top button