fbpx
টাইমলাইনরাজনীতি

বিজেপি নেতার নেমপ্লেট লাগানো গাড়ি থেকে উদ্ধার হল আফিম, গ্রেপ্তার ৪ জন

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ কালো ‘জাইলো’ গাড়ি, সামনে বিজেপির (BJP) মণ্ডল কোষাধ্যক্ষের নেমপ্লেট। লেখা রয়েছে হিন্দিতে। গাড়ির নম্বর ঝাড়খণ্ডের। গভীর রাতে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া মালদহের (Malda) কালিয়াচক থানার গোলাপগঞ্জ এলাকায় ঝাড়খণ্ডের বিজেপি নেতার নেমপ্লেট লাগানো গাড়ি দেখে অবাক হয়ে যায় পুলিশ। কৌতূহলবশত কালিয়াচকের বালিয়াডাঙ্গা মোড়ে গাড়িটি আটকায়।

কিন্তু গাড়িতে কোনও নেতার দেখা মেলেনি। বিজেপির নেমপ্লেট লাগানো সেই গাড়ি থেকে উদ্ধার হল প্রায় আড়াই কেজি নিষিদ্ধ মাদক। মাদক পাচারের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে ওই গাড়ির চার সওয়ারিকে গ্রেপ্তার করে গোলাপগঞ্জ ফাঁড়ির পুলিশ। রবিবার রাতের ঘটনায় অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির।

রবিবার রাতে গোপালগঞ্জের সারদা মোড় এলাকার ওই ঘটনায় গ্রেফতার নইম আনসারি, ইমতিয়াজ আনসারি, তৌফিক আনসারি ও প্রদীপ মাহাতো নামে ৪ যুবক। এদের বাড়ি ঝাড়খণ্ডের রাঁচি থানার রাজা ছাততি এলাকায়।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই গাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে ২ কেজি ৬০০ গ্রাম আফিম। যার বাজারমূল্য কয়েক লক্ষ টাকা। এছাড়াও নগদ চার হাজার টাকা, মোবাইল এবং ধৃতদের পরিচয়পত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ। ধৃতদের নাম নাইম আনসারি, ইমতিয়াজ আনসারি, তৌফিক আনসারি এবং প্রদীপ কুমার মাহাতো। ধৃতদের বাড়ি ঝাড়খণ্ডের রাঁচির রাজাডেরা ছাততি ও আনগড়া এলাকায়।

এই মাদক পাচারের ঘটনায় বিজেপির ঝাড়খণ্ডের কোনও নেতার গাড়িই ব্যবহার করা হয়েছে নাকি ওই নেতাও ওতপ্রোতভাবে জড়িত, তা তদন্ত করে দেখছে পুলিশ। জেলা পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া জানিয়েছেন, মাদক-সহ ঝাড়খণ্ডের চার দুষ্কৃতীকে গ্রেপ্তার করেছে গোলাপগঞ্জ ফাঁড়ির পুলিশ। একটি গাড়ি আটক করা হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

অন্যদিকে, জেলা বিজেপি সভাপতি গোবিন্দ চন্দ্র মন্ডল বলেন, আমি খোঁজ নিয়ে দেখেছি আমাদের মণ্ডলের কোনও কোষাধ্যক্ষ ওই ধরনের বোর্ড লাগাই না। চোরাকারবারীরা বিজেপির নাম বদনাম করার জন্য বিজেপির বোর্ড ব্যবহার করেছে।

Back to top button
Close
Close