fbpx
আন্তর্জাতিকটাইমলাইনভারত

ভারত নেতৃত্ব দেওয়ার কারণে SAARC অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর বৈঠকে যোগ দিচ্ছে না পাকিস্তান

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ করোনা ভাইরাসের (COVID-19) কারণে সমগ্র বিশ্ব এখন এক হয়েছে। এক দেশ অপর দেশের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে। ভারতের (India) প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বিশেষত কিছু দেশকে এই সময় একত্রিত হবার কথা বলেছেন। কিন্তু এই SAARC অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে কনফারেন্সে পাকিস্তান (Pakisatn) অংশ নেয়নি। কারণ, ভারত যেহেতু এই কনফারেন্সের নেতৃত্ব করছিল, তাই পাকিস্তান এই সংকটের মধ্যেও তাঁদের শত্রুতা বজায় রেখে কনফারেন্সে অংশ নেয়নি।

এই বিষয়ের দ্বারা প্রমাণ হয়ে গেল যে পাক সরকার ইমরান খান এই প্রতিকূল পরিস্থিতিতেও ভারতের বিরুদ্ধা চারণ করে চলেছে। অন্যদিকে ইমরান খান এতদিন অন্তরাস্ট্রীয় আলোচনায় বলে এসেছে যে তারা ভারতের সঙ্গে কথা বলতে চায়। কিন্তু ভারতই তাঁদের সঙ্গে কথা বলতে চাইছে না। তবে এই সব বিষয়ই বারবার ইমরান খানের মিথ্যেকে বিশ্বের সামনে নিয়ে আসে।

পাক সরকার SAARC অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর ট্রেড বৈঠকে অংশগ্রহণ না করার পিছনে যে কারণ দেখিয়েছে, তা অত্যন্ত নিম্ন মানসিকতার। পাকিস্তান দাবী করছে, SAARC অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর ট্রেড বৈঠকে করোনা ভাইরাসের হাত থেকে প্রতিকার পাওয়ার জন্য, কিভাবে SAARC অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর থেকে এই মারণ ভাইরাসকে দূরে রাখা যায় তা নিয়ে এবং আর্থিক সংকট থেকে দেশকে রক্ষা করা যায় তা ছিল আলোচনার বিষয়।কিন্তু ভারতকে ছাড়া এই বৈঠক অসম্পূর্ণ এই কথা ভারত বলায়, তাঁর প্রতিবাদে পাকিস্তান এই বৈঠক বয়কট করে। এছাড়াও পাকিস্তান আরও বলে, তারা করোনা ভাইরাসের প্রতিকারের জন্য যথা যম্ভব চেষ্টা করছে। কিন্তু ভারত সম্পূর্ণ কৃতিত্ব নিজেই নিতে চায়, এটা তারা মানতে পারছে না।

করোনা ভাইরাসকে নিয়ে আলোচনার জন্য গত ১৫ ই মার্চ SAARC অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে বৈঠকের ডাক দিয়েছিলেন মোদী সরকার। এই প্রথম বৈঠকে SAARC অন্তর্ভুক্ত অন্যান্য দেশগুলোর রাস্ট্রধ্যক্ষরা অংশগ্রহণ করেছিল। কিন্তু পাকিস্তানের তরফ থেকে দেশের প্রধানের বদলে তাঁদের দেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী যোগ দিয়েছিলেন। তিনি সেখানে করোনার বিষয়ে আলোচনা না করে কাশ্মীর বিষয়ে পাকিস্তানের উপর তাঁদের ক্ষোভ উগ্রে দিয়েছিলেন। যা নিয়ে পরবর্তীতে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে নিন্দার ঝড় উঠেছিল।

পাকিস্তান এখনও করোনা ভাইরাসের বিষয়টাকে গুরুত্ব দিয়ে দেখছে না। যার ফলে পাকিস্তানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ছাড়িয়ে গেছে এবং বেশ কয়েকজন মানুষ ইতিমধ্যেই তাঁদের প্রাণ হারিয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে ভালো ভাবেই বোঝা যাচ্ছে যে, SAARC অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর বৈঠকে পাকিস্তান অংশ গ্রহণ না করায়, তাঁর ফল ভুগতে হবে পাকিস্তানকে।

Back to top button
Close
Close