“এবার ভারতে বিশ্বকাপ জিতবোই, অঙ্ক মিলতে শুরু করেছে”, নিউজিল্যান্ড হারতেই হুঙ্কার পাকিস্তানের

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্কঃ আজ বিশ্বকাপের (2023 ODI World Cup) অতি হাইভোল্টেজ ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা ও নিউজিল্যান্ড (South Africa vs New Zealand)। আজকের ম্যাচে নামার আগে গত ২৩ বছরে একবারও ব্ল্যাক ক্যাপসদের বিরুদ্ধে জয় পায়নি প্রোটিয়ারা। কিন্তু আজ রাসি ভ্যান ডার ডুসেন, কুইন্টন ডি কক এবং কেশব মহারাজদের দাপটে পারফরম্যান্সে ভর করে সেই ধারার অবসান ঘটিয়ে সেমিফাইনালের টিকিট প্রায় নিশ্চিত করে ফেলল দক্ষিণ আফ্রিকা (South African Cricket Team)। আর তাদের এই জয়ের কারণে সবচেয়ে বেশি খুশি এখন পাকিস্তান ক্রিকেট দল (Pakistan Cricket Team)। তবে বাবর আজমদের প্রসঙ্গে প্রতিবেদনের শেষ অংশে আসা যাবে।

চলতি বিশ্বকাপে একের পর এক রেকর্ড ভেঙে চলেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। চলতি বছরে যখন তারা প্রথম ব্যাটিং করেছে এমন শেষ আটটি ম্যাচে পরপর ৩০০ রানের গণ্ডি অতিক্রম করার রেকর্ড গড়ে ফেলেছে তারা। আজকে ধীর স্থির ভাবে শুরু করলেও ডি কক (১১৪) এবং তিন নম্বরে ব্যাটিং করতে নামা ভ্যান ডার ডুসেন (১৩৩) অসাধারণ শতরান করে নিউজিল্যান্ডকে শুরুতেই ব্যাক ফুটে ঠেলে দেয়। মজার ব্যাপার হল যে শুরুতে ব্যাটিং করে দক্ষিণ আফ্রিকা কতটা ভয়ংকর সেটা জানা সত্ত্বেও আজ নিউজিল্যান্ড টসে জিতে রান তারা করার সিদ্ধান্ত নেয়। টপ আধারে দুজন শতরান করার পরে নিচের দিকে ব্যাটিং করতে নেমে ডেভিড মিলনের আগ্রাসী ৫৩ রানের ইনিংস আজ দক্ষিণ আফ্রিকার স্কোরকে পৌঁছে দেয় ৩৫৭ অবধি।

dussen

আজ পুনেতে ইংল্যান্ডের রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। এর আগে ওডিআই ফরমেটে আয়োজিত বিশ্বকাপের একটি সংস্করণে সর্বোচ্চ ছক্কা মারার রেকর্ড ছিল ইংল্যান্ডের নামে। ২০১৯ সালে আয়োজিত বিশ্বকাপে মোট ৭৬ টি ছক্কা মেরেছিল তারা। হাতে বেশ কয়েকটি ম্যাচ বাকি দেখি আজ তাদের অতিক্রম করে গেল দক্ষিণ আফ্রিকা। আজ নিজেদের সপ্তম ম্যাচেই তারা সবকটি ম্যাচ মিলিয়ে ছুঁয়ে ফেলেছে ৮২ ছক্কার গণ্ডি।

আরও পড়ুন: কোহলির সাথে কলকাতায় হবে বিশ্বাসঘাতকতা? BCCI-এর পদক্ষেপে মাটি হবে জন্মদিনের আনন্দ

এরপর রান তাড়া করতে নামা নিউজিল্যান্ডকে শুরুতেই বাঁ হাতি পেসার মার্কো জেন্সন (৩/৩১) এবং কেশব মহারাজ (৪/৪৬) কখনও মাথা তুলে দাঁড়াতেই দেননি। নিউজিল্যান্ড ব্যাটিংয়ে গ্লেন ফিলিপ্স (৬০) ছাড়া আর কেউই লড়াই করতে পারেনি নিউজিল্যান্ড শিবিরে। ১৬৭ রানই শেষ হয়ে যায় নিউজিল্যান্ডের ইনিংস। নিজেদের প্রথম চারটি ম্যাচ জেতার পর পর পর তিন ম্যাচ হেরে আপাতত বেশ কিছুটা চাপে কিউয়িরা। আজ ভারতকে টপকে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষস্থানে পৌঁছে গিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

আরও পড়ুন: এখন কোহলি, রোহিতরাই ভরসা! সম্মানরক্ষার জন্য ভারতীয় দলকে সমর্থন বাংলাদেশ ভক্তদের

আজকে নিউজিল্যান্ডের এই হারের কারণে দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়েও বেশি খুশি হচ্ছে পাকিস্তান। সাত ম্যাচ খেলে ৬ পয়েন্ট নিয়ে এখনো সেমিফাইনালের দৌড়ে টিকে রয়েছেন বাবর আজমরা। এই নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধেই এখনো একটা ম্যাচ খেলা বাকি রয়েছে তাদের। নিউজিল্যান্ড যদি নিজেদের বাকি দুটি ম্যাচের মধ্যে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাচটি হারে এবং পাকিস্তান নিজেদের সেই দুটি ম্যাচে নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে বড় ব্যবধানে জয় পায় তাহলে এখনো পাকিস্তানের পক্ষে সেমিফাইনালে ওঠা সম্ভব। তবে আফগানিস্তান যেন নিজেদের শেষ ম্যাচগুলি জিততে না পারে সেই ব্যাপারটার দিকেও নজর রাখতে হবে পাকিস্তানকে।