টাইমলাইনআন্তর্জাতিক

আমাদের ভাড়ার বন্দুকের মতো ব্যবহার করে গেছে আমেরিকা! আক্ষেপ ইমরান খানের

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ পাকিস্তানের (Pakistan) প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান (Imran Khan) বলেছেন, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে ইউনাইটেড ষ্টেটের (United State) লড়াই পাকিস্তানের জন্য বিনাশকারী ছিল। আফগানিস্তানে ২০ বছর থাকাকালীন ওয়াশিংটন ইসলামাবাদকে ভাড়ার বন্দুকের মতো ব্যবহার করেছে। একটি সাক্ষাৎকারে পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা ভাড়ার বন্দুকের মতো হয়ে গিয়েছি। আমেরিকার আশা করেছিল যে, আমরা ওদের আফগানিস্তানের যুদ্ধ জয় করতে সাহায্য করব।

সম্প্রতি আমেরিকার বিদেশ মন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেছিলেন যে, আফগানিস্তান থেকে সেনা ফিরিয়ে নেওয়ার পর আমেরিকাকে পাকিস্তানের সম্পর্ক নিয়ে বিবেচনা করা উচিৎ। পাকিস্তানের সঙ্গে তালিবান আর অন্য জঙ্গি সংগঠনের অন্য গভীর সম্পর্ক। শোনা যাচ্ছে যে, যখন আমেরিকা আফগানিস্তানে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করছিল, তখন পাকিস্তান ওই জঙ্গিদেরই সাহায্য করছিল। আর এই নিয়ে অনেক প্রমাণও সামনে এসেছে।

আমেরিকার দ্বারা পাকিস্তানের সমালোচনা করার পর এবার ইমরান খানও নিজের মত প্রকাশ করেছে। CNN-কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সন্ত্রাসবাদীদের সাহায্য করা আর তাঁদের নিরাপত্তা দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। ইমরান খান বলেছেন, পাকিস্তান-আফগানিস্তান সীমান্তে সবসময় আমেরিকার ড্রোন উড়ত, সবকিছুর উপর নজর রাখত। সেখানে যদি জঙ্গিদের নিরাপত্তা দেওয়া হত, তাহলে ওঁরা ঠিক টের পেত।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান আরও বলেন, তালিবানের বিরুদ্ধে অ্যাকশন নেওয়ার পরিস্থিতি ছিল কী? পাকিস্তানের অন্দরে তালিবানিরা হামলা চালাচ্ছিল। যদিও, এতকিছু বলার পরেও ইমরান খান বিশ্ব মঞ্চকে আফগানিস্তানের নতুন কেয়ারটেকার সরকারের উপর বিশ্বাস রাখার আবেদন জানিয়েছেন।

সাক্ষাৎকারে ইমরান খান বলেন, আফগানিস্তানে শান্তি আর স্থিরতা বজায় রাখার সবথেকে ভালো উপায় হল তালিবানের সঙ্গে যুক্ত হয়ে তাঁদের মহিলা এবং অন্যান্য ইস্যুতে ব্যস্ত করে দেওয়া। ইমরান খান বলেন, ওখানকার মহিলারা শক্তিশালী, ওঁরা নিজেদের অধিকার নিজেরাই নিয়ে নিতে পারবে।

Related Articles

Back to top button