টাইমলাইনবিনোদন

জটিল রোগে আক্রান্ত পরমার হারিয়ে গিয়েছে ৮০ শতাংশ দৃষ্টি, করোনার বিষয়ে সচেতন করলেন গায়িকা

বাংলাহান্ট ডেস্ক: কিছুদিন আগেই করোনা (corona) থেকে সেরে উঠেছেন গায়িকা তথা একসময়ের জনপ্রিয় সঞ্চালিকা পরমা বন্দ‍্যোপাধ‍্যায় (paroma banerjee)। কিন্তু করোনামুক্তি ঘটলেও বিপদ এখনো।পিছু ছাড়েনি তাঁর। করোনা থেকে সেরে উঠতে না উঠতেই চোখের এক জটিল রোগ বাঁধিয়ে বসেছেন পরমা, যার জেরে চিরদিনের মধ‍্যে দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলারও সম্ভাবনা রয়েছে তাঁর!

করোনার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করে বৃহস্পতিবার রাতে সোশ‍্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করেছেন পরমা। নিজের একটি ছবিও দিয়েছেন তিনি যেখানে দেখা যাচ্ছে, তাঁর বা চোখে বাঁধা রয়েছে একটি ব‍্যান্ডেজ। গায়িকা সতর্ক করে বলেছেন, ‘করোনা থেকে সাবধান। এর থেকে হয়তো আপনার প্রাণ বেঁচেও যেতে পারে কিন্তু কোনো রকম পূর্বাভাস ছাড়াই গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গের অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে যেতে পারে।’

ছবি-ফেসবুক

পরমার পোস্ট থেকে জানা যাচ্ছে, গত এক সপ্তাহে ঝড় বয়ে গিয়েছে তাঁর উপর দিয়ে। কয়েক সপ্তাহ আগে তাঁর একটু জ্বর ভাব, দুর্বলতা দেখা দেয় শরীরে। তখন পরীক্ষা করেও তেমন কোনো সংক্রমণ ধরা পড়েনি। তবে তাঁর CRP মাত্রা বেশ উঁচুর দিকে ছিল। তাই চিকিৎসকের পরামর্শে তিনি অ্যান্টিবায়োটিক খেয়েছিলেন।

গত শুক্রবার থেকে হঠাৎ করেই বাম চোখে ঝাপসা দেখতে শুরু করেন পরমা। রবিবারের মধ‍্যে তাঁর বাঁ চোখের ৮০ শতাংশ দৃষ্টিই চলে যায়। পরমা জানান, তাঁর চোখে কোনো ব‍্যথা, জ্বালা বা জল পড়া কিছুই ছিল না। শুধু চোখে একটু ভারি ভাব এবং ঝাপসা দৃষ্টি। এরপরেই কলকাতার প্রখ‍্যাত রেটিনা সার্জন অভিজিৎ চট্টোপাধ‍্যায়ের পরামর্শ নেন গায়িকা।

ছবি-ফেসবুক

তিনি জানান, VKH সিনড্রোম নামে এক রোগের শিকার হয়েছেন তিনি। এর জেরে কিছু ক্ষেত্রে চিরতরেও চলে যায় দৃষ্টিশক্তি। পরমার কথায়, চিন্তিত সার্জন বারবার তাঁকে জিজ্ঞাসা করছিলেন, “কী করে এটা বাঁধালে বলো তো?” সঙ্গে সঙ্গে একাধিক রক্ত পরীক্ষা, চোখের অ্যাঞ্জিওগ্রাম ও সার্জারি হয় পরমার। তাঁর চোখের মণি থেকে ফ্লুইড নিয়ে পরীক্ষা করা হয় রোগের ধরনটা জানতে।

পরমা লিখেছেন, তিনি এখনো ঠিক জানেন না এটা কীভাবে হল আর কবে তিনি দৃষ্টি ফিরে পাবেন। এখনো বেশ কিছু পরীক্ষা নিরীক্ষা চলছে তাঁর। স্টেরয়েড ওষুধও শুরু হবে শীঘ্রই। তবে তিনি আশা করছেন সমগ্র দৃষ্টিশক্তিটাই ফিরে পাবেন তিনি খুব তাড়াতাড়ি।

Related Articles

Back to top button