টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

করোনা আবহেই উচ্চ প্রাথমিক ও অতিথি অধ্যাপকদের নিয়ে মুখ খুললেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ করোনা আতঙ্কে এই মুহুর্তে কাপছে গোটা দেশ। সারা ভারতের প্রতিটি কোনায় চলছে লকডাউন। এই পরিস্থিতিতে ২০১৬ সাল থেকে এখনো পর্যন্ত নিয়োগ স্থগিত থাকা আপার প্রাইমারি নিয়ে মুখ খুললেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন,  ‘করোনার কারণে এই মুহূর্তে নিয়োগ সম্ভব নয়। করোনা সংকট কেটে গেলে নিয়োগ সমস্যার সমাধান করা হবে।

আপার প্রাইমারি নিয়ে আশা ব্যাঞ্জক তেমন কিছু না বললেও, অতিথি অধ্যাপকদের আশার কথা শুনিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। খুব শীঘ্রই অতিথি অধ্যাপকদের ভাতা সমস্যার সমাধান করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

পাশাপাশি, করোনার জেরে আগেই বন্ধ হয়েছিল স্কুল ও কলেজের স্বাভাবিক কাজকর্ম, যার জেরে গোটা দেশের শিক্ষা ব্যাবস্থা স্তব্ধ। ছাত্র ছাত্রীদের কাছ থেকে সাড়া পেয়ে আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত ক্লাস বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।
৭ থেকে ১৩ এপ্রিল দূরদর্শনে প্রথম পর্বের ভার্চুয়াল ক্লাস এর ব্যাবস্থা করেছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ।

ছাত্র-ছাত্রীরা শিক্ষকদেরকে প্রশ্ন করতে পারবেন। রাজ্য সরকারের ‘বাংলার শিক্ষা’ পোর্টালে ই-মেল করে, হোয়াটস অ্যাপ বা ফোন করে প্রশ্ন করতে পারবে ছাত্রছাত্রীরা।
১৮০০১০৩৭০৩৩ নম্বরটি এডুকেশন হেল্পলাইন হিসাবে চালু থাকবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। পাশাপাশি, ক্লাস এইট পর্যন্ত ছাত্র-ছাত্রীদের হোম টাস্ক দেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত করোনা মোকাবিলায় প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত সমস্ত পড়ুয়াকে পাশ করিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল রাজ্য সরকার। কিন্তু তাতে যাতে ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে পড়াশোনা করবার মানসিকতা না চলে যায় তাই হোম টাস্ক দেবার ব্যাবস্থা বলে জানা যাচ্ছে শিক্ষামন্ত্রক সূত্রে।বাংলার শিক্ষা পোর্টালে বিষয় অনুযায়ী হোম টাস্ক দেওয়া হবে। স্কুল খোলার পর শিক্ষকদের তা দেখাতে হবে প্রতিটি ছাত্র-ছাত্রীকে।

Related Articles

Back to top button