টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

২৪ ঘণ্টায় মোহভঙ্গ! তৃণমূল ছেড়ে কংগ্রেসে যাওয়া বিদায়ী কাউন্সিলর বললেন আমি তৃণমূলেই আছি

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ টিকিট না পেয়ে রাগে, ক্ষোভে ছেড়েছিলেন দল, আর সেই ঘটনার ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই উল্টো সুর বিদায়ী তৃণমূল কাউন্সিলর পার্থ মিত্রের গলায়। দলবদলের রবিবার ফিরহাদ হাকিমের পাশে দাঁড়িয়ে তৃণমূলের বিদায়ী কাউন্সিলর পার্থ মিত্র বলেন, ‘আমি তৃণমূলে ছিলাম আর আছি।” উনি পাল্টা অভিযোগ করে বলেন, আমার নামে মিথ্যা প্রচার করা হয়েছে। আমি ফিরহাদ হাকিমের আশীর্বাদ নিয়ে তৃণমূলের সৈনিক হয়েই কাজ করে যেতে চাই।

পার্থবাবু যতই মুখে বলুক না কেন, ২৪ ঘণ্টা আগে তৃণমূলের টিকিট না পেয়ে কংগ্রেসে যোগ দেওয়া ওনার ছবি ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। এমনকি তিনি কংগ্রেসে যোগ দিয়ে এও বলেছিলেন যে, তিনি কংগ্রেসের টিকিটে পুরভোটে লড়বেন। হাতে কংগ্রেসের পতাকা এবং মাথায় গান্ধী টুপি পরতেও দেখা গিয়েছিল ওনাকে।

শনিবার পার্থবাবু অভিযোগ করে বলেছিলেন, তাঁকে টিকিট না দেওয়ার পিছনে অনেক বড় ষড়যন্ত্র রয়েছে। তিনি জানিয়েছিলেন, ‘আমি কংগ্রেসের হয়েই লড়ব। আমি ১০ বছর তৃণমূলের হয়ে কাজ করেছি। আমার এলাকায় কেউ খুঁত দেখাতে পারবে না। তৃণমূল আমাকে টিকিট দিল না কেন জানিনা। আর এই কারণেই আমি কংগ্রেসের হাত ধরলাম।”

শুধু টাই নয়, পার্থবাবুকে হাতে পেয়ে তাঁকে প্রার্থীও ঘোষণা করে কংগ্রেস। ৮ নম্বর ওয়ার্ডে কংগ্রেসের প্রার্থী হিসেবে পার্থ মিত্রর নামও ঘোষণা হয়ে যায়। কিন্তু সেই নাম ঘোষণার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই পার্থবাবুর চৈতন্য ফিরে আসে। আর এরপরই তিনি আবার তৃণমূলের সঙ্গে কাজ করার কথা জানান। তিনি বলেন, আমি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর ফিরহাদ হাকিমের আশীর্বাদ নিয়ে তৃণমূলে রয়েছি। আমার নামে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button