টাইমলাইনভারত

দেশবাসীর কাছে কিভাবে পৌঁছে দেওয়া হবে করোনা ভ্যাকসিন? পরিকল্পনা বৈঠক সারলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ ভারতে করোনা ভ্যাকসিনের (Corona vaccine) স্বেচ্ছাসেবকদের উপর ট্রায়াল ইতিমধ্যেই শুরু করা হয়েছে। স্বেচ্ছায় এগিয়ে আসা বেশ কয়েকজন ব্যক্তি তাদের নিজেদের দেহে করোনা টিকা ধারণ করে সরকারকে সহযোগিতা করছে। এই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে গেলেই সর্বজনের জন্য বাজারজাত করা হবে করোনা ভ্যাকসিন।

করোনা টিকা পৌঁছে দেওয়ার বিষয়ে বৈঠক করলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী
ট্রায়াল সম্পূর্ণ হলে এই করোনা প্রতিষেধক বিপুল পরিমাণে তৈরি এবং তা কিভাবে জনসাধারণের মধ্যে পৌঁছে দেওয়া যাবে, সে বিষয়ে দেশের প্রথম সারির আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক সম্পন্ন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra modi)। শুক্রবার NITI আয়োগের কেন্দ্রীয় দলের সঙ্গে বৈঠক সম্পন্ন করে প্রধানমন্ত্রী ট্যুইটে জানান, ‘করোনা ভ্যাকসিন কিভাবে সকলের মধ্যে বন্টন করা যায় সেই বিষয়ে বৈঠক করা হয়েছে। সেইসঙ্গে ভ্যাকসিন সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় ছাড়পত্র এবং তৈরিতে অগ্রগতি নিয়েও আলোচনা করা হয়েছে’।

আলোচনা হয় আরও নানা বিষয়ে
পাশাপাশি তিনি আরও জানিয়েছেন, এই করোনা টিকা দেওয়ার বিষয়ে কোন শ্রেণীর মানুষকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে, স্বাস্থ্যকর্মীদের কিভাবে দেওয়া হবে সেই বিষয়েও আলোচনা করা হয়েছে। এছাড়াও টিকা প্রয়োগকারীর সংখ্যা বৃদ্ধি ও প্রযুক্তির বিষয়েও আলোচনা করা হয়েছে।

ভারতের সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী বিভিন্ন দেশ
বর্তমান সময়ে একাধিক সংস্থা বাজারে করোনা ভ্যাকসিন আনার বিষয়ে অপেক্ষায় রয়েছে। চলছে চূড়ান্ত পর্যায়ের কাজ। সেই দৌড়ে সামিল থাকা সংস্থাদের বিষয়ে সরকার জানিয়েছে- ভারতে পাঁচটি করোনা ভ্যাকসিন বর্তমানে অ্যাডভান্স স্টেজে রয়েছে। এই ৫ টি ভ্যাকসিনের মধ্যে ৪ টির বর্তমানে দ্বিতীয় /তৃতীয় ধাপে রয়েছে এবং ১ টি প্রথম/দ্বিতীয় ধাপে রয়েছে। সেইসঙ্গে অস্ট্রিয়া ও দক্ষিণ কোরিয়া, সুইৎজারল্যান্ড, বাংলাদেশ, কাতার, ভুটান, মায়ানমারও ভারতের সঙ্গে করোনা ভ্যাকসিন তৈরিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

Back to top button