টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

রাজনৈতিক জাতাকলে পোষ্ট কার্ডের আকাল,বিপাকে সাধারন মানুষ

উদয়ন বিশ্বাস  :রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের গাড়িতে যেভাবে বিজেপি কর্মীরা জয় শ্রীরাম স্লোগান দিয়েছিলেন, তার পাল্টা হিসেবে বিজেপির পক্ষ থেকে অর্জুন সিং দাবি করেছিলেন প্রায় ১০লক্ষ পোস্টকার্ড মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ির ঠিকানায় পাঠানো হবে। সেখানে জয় শ্রীরাম লেখা থাকবে। সেই পরিপ্রেক্ষিত পাল্টা হিসেবে রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, আমার কাছে ‘জয় হিন্দ’ও ‘জয় বাংলা’ লেখা পাঠাবো। গতকাল থেকে শুরু হয়েছে। দক্ষিণ দমদম পৌরসভার সিআইসি দেবাশীষ ব্যানার্জি প্রায় ১০হাজার পোষ্ট কার্ড নরেন্দ্র মোদির দিল্লির বাসভবনে ‘জয় হিন্দ’ও ‘বন্দেমাতরম লেখা’ পাঠিয়েছেন। কলকাতা পৌরসংস্থার পৌর প্রতিনিধি গৌতম হালদার ও প্রায় পাঁচ হাজার পোষ্ট কার্ড নরেন্দ্র মোদী ও অমিত সাহের দিল্লীর বাসায় পাঠিয়েছেন।

সেই পরিপ্রেক্ষিতে দমদম, বাগবাজার, গিরিশ পার্ক, লেকটাউন, কালিন্দী সহ বিস্তীর্ণ এলাকায় পোস্ট অফিসে কোনো পোস্ট পাওয়া যাচ্ছে না। আমরা একাধিক পোষ্ট অফিস ঘুরে ছিলাম সেখানে পোষ্ট অফিসারা বলেছেন যে দুদিন ধরে বিজেপি এবং তৃণমূল উভয়পক্ষই একাধিক কার্ড নিয়ে যাচ্ছে। এর ফলে সাধারণ মানুষ যারা এখনো এই পোষ্টের মাধ্যমে দূর দূরান্তে খবর পাঠান। তারা পোষ্ট কার্ড থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। রাজনৈতিক চর্চার মধ্যে পোষ্ট কার্ডের আকাল শুরু হয়েছে।

আগে দিনে ১০টার বেশি পোষ্ট কার্ড ব্যাবহার হতো না। গতকাল থেকে যে ভাবে রাজনৈতিক দলের নেতারা পোষ্ট কার্ড নিয়ে যাচ্ছে তাতে কিছুটা হলেও বিপাকে সাধারন মানুষ৷

Back to top button
Close