টাইমলাইনবিনোদন

‘আমি প‍্যান ইন্ডিয়া তারকাদের বাপ!’ আল্লু অর্জুন-যশদের সোজাসুজি চ‍্যালেঞ্জ ছুঁড়লেন মাধবন

বাংলাহান্ট ডেস্ক: সময়ের সঙ্গে সঙ্গে পরিণত হয়েছেন আর মাধবন (R Madhavan)। চকলেট বয় থেকে বদমেজাজি শিক্ষক পর্যন্ত একটা লম্বা রাস্তা পেরিয়ে এসেছেন তিনি। সুদুর দক্ষিণ থেকে বলিউড, সব ইন্ডাস্ট্রির দর্শকদের মুগ্ধ করেছেন মাধবন। এবার আরো একটি ছবি নিয়ে আসছেন তিনি।

‘রকেট্রি: দ‍্য নাম্বি এফেক্ট’ ছবি মুক্তি পেতে চলেছে খুব শিগগির। সেই ছবির প্রচারেই সম্প্রতি কলকাতায় এসেছিলেন মাধবন। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে একাধিক বিষয় নিয়ে মুখ খুলেছেন তিনি। অভিনেতা এদিন স্পষ্ট গলায় বলেন, “আমি প‍্যান ইন্ডিয়া স্টারদের বাপ!”


প‍্যান ইন্ডিয়া তারকা, এই শব্দগুলোর সঙ্গে এখন ভালভাবেই পরিচিত দর্শকরা। পুষ্পার আল্লু অর্জুন, আর আর আর এর রাম চ‍রণ, কেজিএফ এর যশ, প্রভাস এই তারকাদের নামই উঠে আসছে প‍্যান ইন্ডিয়া তারকা হিসাবে। মাধবনের কথায়, যে তারকারা চারটি ভাষায় কাজ করতে পারেন তাদেরকেই এই তকমাটা দেওয়া হয়।

তবে এই তারকাদের অনেক আগে থেকেই মাধবন প্রায় ২০ বছর ধরে বিভিন্ন ভাষায় কাজ করে চলেছেন। তাঁর আগামী ছবি রকেট্রি একাধিক ভাষায় মুক্তি পাচ্ছে। কিন্তু বাংলা ভাষাটা না জানায় বাংলাতে নিজের ছবি ডাব করতে পারলেন না। তবে বাংলা ভাষাটা ভাল করে শিখতে চান বলে জানান অভিনেতা।

কিছুদিন আগেই মাধবনের একটি মন্তব‍্যে ট্রোল শুরু হয়েছিল সোশ‍্যাল মিডিয়ায়। ছবির প্রচারে এসে অভিনেতা দাবি করেন, ইন্ডিয়ান স্পেস রিসার্চ অর্গানাইজেশন মহাকাশে মঙ্গলযান পাঠানোর আগে হিন্দু ক‍্যালেন্ডারের শরণাপন্ন হয়েছিল। হিন্দু ক‍্যালেন্ডার দেখেই মহাকাশে রকেট পাঠায় ইসরো।

তুমুল ট্রোল হওয়ার পর বিষয়টা নিয়ে মুখ খোলেন অভিনেতা। টুইটে তিনি লিখেছেন, ‘আমার এটা প্রাপ‍্য ছিল কারণ আমি পঞ্জিকাকে তামিল ভাষায় পঞ্চাঙ্গ বলেছি। আমি খুব অজ্ঞ। যদিও মাত্র দুটো ইঞ্জিন দিয়ে যে সাফল‍্য মঙ্গল অভিযানে এসেছিল তা এতে মিথ‍্যে হয়ে যায় না। এটা একটা রেকর্ড। বিকাশ ইঞ্জিন একটা রকস্টার।’

হিন্দি, তামিল ও ইংরেজি ভাষায় শুটিং করা হয়েছে ছবিটির। এছাড়াও তেলুগু, মালয়ালম ও কন্নড় ভাষাতেও মুক্তি পাবে রকেট্রি: দ‍্য নাম্বি এফেক্ট। আগামী ১ লা জুলাই প্রেক্ষাগৃহে আসতে চলেছে বহু প্রতীক্ষিত এই ছবি।

Related Articles

Back to top button