টাইমলাইনবাংলাদেশ

বাংলাদেশে গ্রেপ্তার জাল নোট চক্র, উদ্ধার প্রচুর নকল ভারতীয় টাকা, কৌশল জেনে অবাক গোয়েন্দারা

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ করোনা আবহে বড় সড় জাল নোট চক্রের দলকে গ্রেপ্তার করল বাংলাদেশের র‍্যাব। সেলিম, মনির, মঈন, রমিজা বেগম, খাদেজা বেগম ও এক কিশোরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে মিরপুর ও বসুন্ধরা থেকে। তাদের কাছ থেকে ৪০ লাখ টাকা মূল্যের ভারতের ৫০০ ও ২০০০ টাকার জাল নোট পাওয়া গিয়েছে। পাশাপাশি উদ্ধার হয়েছে প্রচুর জাল বাংলাদেশের টাকাও।

দুষ্কৃতিরা জানিয়েছে, ১০০ টাকার নোটকে জলে সেদ্ধ করে নকল রং ও আধুনিক প্রযুক্তির সাহায্যে ৫০০ টাকার নকল নোটে বদল করা হত। এর ফলে নোটের কাগজ এক থাকত, আসল ও নকল নোটের ফারাক বোঝা দুঃসাধ্য হয়ে উঠত। র‍্যাব জানিয়েছে, কোরবানি ইদকে সামনে রেখে এই সব জাল নোট চক্র সক্রিয় হয়ে উঠেছে। উদ্দেশ্য পশু বিক্রির মাধ্যমে জাল নোট বাজারে ছড়িয়ে দেওয়া।

জানা যাচ্ছে, এই জাল নোট চক্রের মূল পাণ্ডা মনির। তাকে টাকা ছাপানোর কাজে সহযোগিতা করত মঈন। সে প্রিন্ট করা টাকা নির্দিষ্ট আকার অনুযায়ী কাটত। রমিজা বেগম কাগজে আঠা লাগানোর কাজে সেলিমকে সহায়তা করত। সাদা কাগজে নকল নিরাপত্তা সুতা বসিয়ে জলছাপ দেওয়ার কাজ করত খাদিজা বেগম ও অভিযুক্ত কিশোর।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ সীমান্ত থেকে পার হয়ে ভারতে প্রচুর জাল নোট ঢোকে। একাধিক কড়াকড়ি সত্ত্বেও বাংলাদেশ থেকে ভারতে জাল নোট পাচার বন্ধ করা সম্ভব হয় নি। এই জাল নোটের মাধ্যমে উপার্জিত টাকা নাশকতা সহ একাধিক অসামাজিক কাজে ব্যাবহার করা হয়।

Back to top button