fbpx
টাইমলাইনভারত

করোনা মোকাবিলায় রেলঃ জনগণের জন্য খুলে দেওয়া হলো রেলের হোস্টেল

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ  দেশজুড়ে ইতিমধ্যেই থাবা বসিয়েছে করোনা ভাইরাস। আক্রান্ত হয়েছেন এক হাজারের বেশি মানুষ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ইতিমধ্যেই সমগ্র দেশ লক ডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। যার ফলে কোন সংক্রমণ অনেকটাই আটকানো যাবে বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।

করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় লড়ছে ভারতীয় রেল। সরকারকে সহায়তা করতে অনেকগুলো নতুন ব্যবস্থা নিয়েছে তারা। সম্প্রতি ভারতের কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল জানিয়েছেন যে গুজরাটের বদলায় অবস্থিত মুম্বাই আমেদাবাদ হাই স্পিড রেলের প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটির যে নতুন হোস্টেল তৈরি হয়েছে তা কোয়ারেন্টাইন কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হবে।পিটিআইয়ের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গুজরাট রাজ্য জুড়ে 6700 বিছানা সহ ১৩৪ টি কোয়ারেন্টাইন সুবিধা রয়েছে। রাজ্য স্বাস্থ্য বিভাগের রেকর্ড অনুসারে, মোট ১১,১০৮ জন লোক পৃথকীকরণের অধীনে রয়েছেন এবং ২০০০০-এরও বেশি লোক সরকার সরবরাহ করা কোয়ারানটিন সুবিধায় রয়েছেন এবং ১০,৫০০ জনেরও বেশি লোক গৃহ-ব্যবস্থাপনার আওতায় রয়েছেন।

বোধোদরায় হাই-স্পিড রেল প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটটি দেশের ভবিষ্যতের উচ্চ গতির রেল কর্মীদের প্রশিক্ষণ ক্ষেত্র হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। অত্যাধুনিক প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটটি বারো শ্রেণির কক্ষ, ছয়টি অনুশীলন কক্ষ, তিনটি বহুমুখী কক্ষ, একটি 250 সিটের অডিটোরিয়াম, দুটি বৃহত স্টোরেজ রুম এবং বিভিন্ন আধুনিক নির্মাণ বৈশিষ্ট্য সহ সজ্জিত হবে। ইনস্টিটিউট সকল প্রশিক্ষণার্থীদের জন্য থাকার ব্যবস্থা করবে।

প্রেস ট্রাস্ট অফ ইন্ডিয়া এর প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে যে সমস্ত গুজরাট রাজ্য জুড়ে 134 টি ওয়ারেন্টি সেন্টার রয়েছে যেখানে মোট 6,700 জন কে কোয়ারেন্টাইন করা যেতে পারে। রাজ্য স্বাস্থ্য বিভাগের রেকর্ড অনুসারে, মোট ১১,১০৮ জন লোক কোয়ারেন্টাইন এর অধীনে রয়েছেন এবং ২০০০০-এরও বেশি লোক সরকার সরবরাহ করা কোয়ারানটিন সুবিধায় রয়েছেন এবং ১০,৫০০ জনেরও বেশি লোক হোম কোয়ারেন্টাইন এর আওতায় রয়েছেন।

Back to top button
Close
Close