টাইমলাইনবিধানসভা নির্বাচনবিনোদনরাজনীতি

‘বিধায়ক না, সাংসদ হবেন সায়নী’, সহযোদ্ধাকে ‘বাজিগর’ বলে প্রশংসা করলেন রাজ চক্রবর্তী

বাংলাহান্ট ডেস্ক: নির্বাচনের আগে বহু তারকাই যোগ দিয়েছিলেন তৃণমূলে (tmc)। তার মধ‍্যে থেকে অনেকে যেমন জয়ী হয়েছেন আবার কয়েকজনকে দেখতে হয়েছে হারের মুখ। এমনি একজন হলেন সায়নী ঘোষ (saayoni ghosh)। আসানসোল দক্ষিণে তৃণমূলের হয়ে প্রার্থী হয়েছিলেন তিনি। নাম ঘোষনা হওয়ার পর থেকেই পুরো দমে প্রচারে নেমে পড়েছিলেন সায়নী।

প্রচণ্ড রোদ হোক বা কালবৈশাখি ঝড় সব উপেক্ষা করেই স্থানীয়দের দুয়ারে দুয়ারে গিয়ে প্রচার করেছেন। তাঁর অক্লান্ত পরিশ্রমের অনেকেই প্রশংসা করেছিলেন। কিন্তু ফল বেরোতে দেখা গেল হার হয়েছে সায়নীর। বিজয়ী হলেন বিজেপি প্রার্থী অগ্নিমিত্রা পল।


তবে হেরে গেলেও সায়নীর কঠোর পরিশ্রমকে কুর্নিশ জানিয়েছেন সকলে। এই তালিকায় রয়েছেন পরিচালক রাজ চক্রবর্তীও (raj chakraborty)। ব‍্যারাকপুর থেকে তৃণমূলের হয়ে প্রার্থী হয়েছিলেন তিনি। প্রথমে তাঁকে বহিরাগত তকমা দেওয়া হলেও শেষমেষ ভোটে জিতে ফিরেছেন। এবার সায়নীকে ‘বাজিগর’ বলে তাঁর মনোবল বাড়ালেন রাজ।

মমতা বন্দ‍্যোপাধ‍্যায়ের একটি ফ‍্যানপেজ থেকে একটি টুইট করা হয়েছিল। সায়নীর একটি ছবি দিয়ে লেখা হয়, ‘তোমার লড়াই বাংলা মনে রাখবে। মনে রাখবে তোমার হার না মানা অদম্য জেদ। তুমি হেরে যাওনি, তুমি পেয়েছো আসানসোল বাসীর ভালোবাসা। সায়নী আজ তুমি বিধায়ক হতে পারলেনা কিন্তু আগামীদিন আমরা তোমায় সাংসদ হিসেবে দেখছি। এগিয়ে চলো।’

এই টুইটটি শেয়ার করে সায়নী লেখেন, ‘খেলা হবে।’। এবার সায়নীর টুইটটি রিটুইট করে রাজ লেখেন, ‘হার কে জিতনে ওয়ালো কো হি বাজিগর কহতে হ‍্যায়। সায়নী আরো বড় কিছু তোমার জন‍্য‍ অপেক্ষা করে রয়েছে। সময় দাও।’

প্রসঙ্গত, প্রার্থী তালিকা ঘোষনা হওয়ার দিনই নিজের নির্বাচনী বিধানসভা কেন্দ্রে যাওয়ার জন‍্য উদগ্রীব হয়ে উঠেছিলেন সায়নী। প্রথম থেকেই জোর কদমে প্রচারে নেমে পড়েছিলেন সায়নী। কার্যত সকলের বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার করছেন তিনি। সকলের সঙ্গে বসে মুড়ি চপ খেতেও দেখা যায় সায়নিকে। বয়স্ক থেকে ছোটরা, সকলের সঙ্গেই হাসি মুখে মিশে গিয়েছেন সায়নী। প্রচারের সমস্ত ছবি ভিডিওই নিজের সোশ‍্যাল মিডিয়া হ‍্যান্ডেলে শেয়ার করেছেন তিনি।

Back to top button