টাইমলাইনভারত

লকডাউনে বেপরোয়া, পুলিশকে বনেটে নিয়ে গাড়ি ছুটিয়ে গ্রেফতার যুবক

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ লকডাউনের (lockdown) রাস্তায় নজরদারি চালানোর সময় চলন্ত গাড়ি দাঁড় করেছিলেন পুলিশ অফিসার। চেকপোস্টে না থেমে সেই গাড়ি ওই পুলিশ অফিসারকে নিয়েই ছুটতে শুরু করে। শনিবার সকালে এই ঘটনা ঘটেছে পঞ্জাবের জালন্ধরে (Jalandhar, Punjab)। ঘটনার জেরে গাড়ির চালক ২০ বছরের এক যুবক ও তাঁর বাবাকে (গাড়ির মালিক) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

লকডাউনের মধ্যেই বাবার গাড়ি নিয়ে বেরিয়েছিল বছর কুড়ির কলেজ পড়ুয়া। সঙ্গে ছিলেন তার বাবাও। পুলিশ চেকপোস্টে গাড়ি থামানোর চেষ্টা করলে এই কাণ্ড ঘটায় সে। জানা গিয়েছে, এই ঘটনা পঞ্জাবের জলন্ধরের। অভিযুক্ত তরুণের নাম আনমোল মেহমি (Anmol Mehmi)। এই তরুণ এবং তার বাবা ও গাড়ির মালিক ব্যবসায়ী পরমিন্দর কুমারের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগে মামলা দায়ের করেছে জলন্ধর পুলিশ। পাশাপাশি টুইট করে পঞ্জাব পুলিশের ডিজিপি জানিয়েছেন, লকডাউনের মধ্যে এই ধরনের ঘটনাকে কোনওভাবেই রেয়াত করা হবে না।

জানা গিয়েছে, জলন্ধরের মিল্ক বার চৌকের কাছে দ্রুতগতিতে ধেয়ে আসা এই গাড়িটি থামানোর চেষ্টা করেন এএসআই মুলখ রাজ (Mulk Raj)। তখনই গাড়ির গতি বাড়িয়ে চম্পট দেওয়ার চেষ্টা করে ওই তরুণ। চেক পোস্টের দায়িত্বে থাকা বাকি পুলিশকর্মীরা জানিয়েছেন, বেপরোয়া গাড়ির ধাক্কায় বনেটের উপর মুখ থুবড়ে পড়েনএএসআই। তাঁকে নিয়ে ওই অবস্থাতেই গাড়ি ছুটিয়ে দেয় তরুণ। পিছন পিছন পুলিশকর্মীকে উদ্ধারের জন্য ছুটে যান অনেকেই।

একটু দূরে গিয়েই গাড়ি থামাতে বাধ্য হয় ওই তরুণ। এরপর বাকি পুলিশরা তাকে গাড়ি থেকে নামতে বললে তর্ক জুড়ে দেয় সে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত উপায় না পেয়ে বাধ্য হয়েই গাড়ি থেকে নামে যুবক। তারপর তাকে হাতকড়া পরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় থানায়। এই ঘটনায় হতবাক চেক পোস্টের দায়িত্বে থাকা পুলিশকর্মীরা। তরুণের সাহস এবং আইন ভেঙে এমন কাণ্ড ঘটানোর বহর দেখে অবাক ওই এএসআই-ও। তবে ভাগ্য ভাল এ যাত্রায় প্রাণে বেঁচে গিয়েছেন তিনি। তাঁর কোনও চোট-আঘাত লাগেনি বলেই খবর।

Back to top button