টাইমলাইনটাকা পয়সাভারত

ডলারের নিরিখে ফের একবার টাকার দামে রেকর্ড পতন! নিম্নমুখী সেনসেক্সও

বাংলা হান্ট ডেস্ক: এবার কার্যত “রেকর্ড” তৈরি করে ফের একবার ধস নামল টাকার দামে। শুধু তাই নয়, মার্কিন ডলারের নিরিখে এবার ভারতীয় টাকার দাম নেমে এল ৭৮ টাকায়। সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ইদানীং কালের মধ্যে টাকার দামে এতটা পতন পরিলক্ষিত হয়নি। এমনকি, গত দশ বছরে প্রথমবার এটা কমে হয়েছিল ৭৮.২৮ টাকা।

তবে, আজকে যে শুধু টাকার দামেই পতন দেখা গিয়েছে তা কিন্তু নয়। বরং, সেনসেক্সও আজ নিম্নমুখী হয়েছে। জানা গিয়েছে আজ, বিশ্ববাজারের নিরিখে সেনসেক্স ১৫০০ পয়েন্ট নেমে এসেছে। পাশাপাশি, ডলার ইনডেক্স ১০৪ মার্ক অতিক্রম করেছে।

এদিকে, টাকার দামে ক্রমাগত পতনের কারণ হিসেবে বিশেষজ্ঞরা মূলত কিছু কারণকেই দায়ী করেছেন। প্রথমত, বিশ্ববাজারে তেলের দাম বর্তমানে হু হু করে বাড়ছে। যার প্রত্যক্ষ প্রভাব পড়েছে এর উপর। এছাড়াও, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের আবহে বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশই অর্থনৈতিকভাবে প্রভাবিত হচ্ছে। যার ফলে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মুদ্রাস্ফীতির হার।

পাশাপাশি, মুদ্রাস্ফীতির এই চাপ বৃদ্ধির মধ্যে ইক্যুইটি বাজারে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের ক্রমাগত বিক্রির জেরেও পতন ঘটেছে টাকার। এদিকে, এই মুদ্রাস্ফীতিই বর্তমানে ভারতের নীতিনির্ধারকদের প্রধান মাথা ব্যথা হিসেবে পরিগণিত হচ্ছে। ইতিমধ্যেই, চলতি আর্থিক বছরের জন্য RBI মুদ্রাস্ফীতির হারে ৫.৭ শতাংশ থেকে ৬.৭ শতাংশের পূর্বাভাস দিয়েছে।

এমতাবস্থায়, গত বুধবার রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার (RBI) মনিটারি কমিটির বৈঠকের ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। ওই ফলাফল ঘোষণা করে RBI গভর্নর শক্তিকান্ত দাস জানিয়েছেন যে, বৈঠকে নীতিগত সুদের হার বা রেপো রেট ৫০ বেসিস পয়েন্ট বা ০.৫০ শতাংশ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ রেপো রেট বর্তমানে ৪.৪০ থেকে বেড়ে ৪.৯০ হয়েছে। এদিকে, দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের এই সিদ্ধান্তের ফলে সুদের হার রাতারাতি বৃদ্ধি পাবে। যার প্রত্যক্ষ প্রভাব পড়বে সাধারণ মানুষের ওপর।

Related Articles