টাইমলাইনটাকা পয়সাভারত

এবার ফের আরও একটি ব্যাঙ্কের লাইসেন্স বাতিল করল RBI! গ্রাহক হলে এখনই হন সতর্ক

বাংলা হান্ট ডেস্ক: দেশের ব্যাঙ্কগুলির জন্য প্রায়শই একাধিক নির্দেশ জারি করে RBI (Reserve Bank of India)। এমতাবস্থায়, ওই নির্দেশগুলি প্রত্যেকটি ব্যাঙ্ককেই অনুসরণ করতে হয়। তবে, এবার ফের একটি ব্যাঙ্ককে বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে RBI। শুধু তাই নয়, সংশ্লিষ্ট ব্যাঙ্কটির লাইসেন্সও বাতিল করা হবে বলে জানা গিয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, সম্প্রতি জানা গিয়েছিল, গত আগস্ট মাসে পুণেতে স্থিত রুপি কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্ক লিমিটেডের (Rupee Co-operative Bank Limited) লাইসেন্স বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। সেই রেশ বজায় রেখেই এবার লক্ষ্মী সমবায় ব্যাঙ্ক লিমিটেডের (Laxmi Co-Operative Bank Ltd) লাইসেন্সও বাতিল করে দিল RBI।

এই প্রসঙ্গে গত বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, ওই সমবায় ব্যাঙ্কের হাতে বর্তমানে পর্যাপ্ত মূলধন নেই। যে কারণে তাদের আয়েরও সম্ভাবনা নেই। এমতাবস্থায়, লক্ষ্মী কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্ক লিমিটেডের লাইসেন্স বাতিল করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য যে, এই সমবায় ব্যাঙ্কটি মহারাষ্ট্রের সোলাপুরে অবস্থিত।

এছাড়াও, RBI-এর তরফে একটি বিবৃতির মাধ্যমে জানানো হয়েছে যে, লক্ষ্মী সমবায় ব্যাঙ্ক লিমিটেডের দাখিল করা পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ডিপোজিট ইনসিওরেন্স অ্যান্ড ক্রেডিট গ্যারান্টি কর্পোরেশনের (Deposit Insurance and Credit Guarantee Corporation, DICGC) থেকে ৯৯ শতাংশের বেশি আমানতকারী পুরো অর্থ ফেরত পাওয়ার যোগ্য হিসেবে বিবেচিত হবেন। এমতাবস্থায়, গত ১৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সর্বমোট ১৯৩.৬৮ কোটি টাকা দিয়েছে ডিপোজিট ইনসিওরেন্স অ্যান্ড ক্রেডিট গ্যারান্টি কর্পোরেশন।

এদিকে, RBI-এর তরফে আরও জানানো হয়েছে যে, “বর্তমানে ব্যাঙ্কের হাতে পর্যাপ্ত মূলধন নেই। পাশাপাশি, আর আয়ের সুযোগও নেই।” এছাড়াও, ইতিমধ্যেই লক্ষ্মী সমবায় ব্যাঙ্ক লিমিটেডের কাজকর্ম বন্ধের নির্দেশও দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের তরফে। গত ২২ সেপ্টেম্বর অর্থাৎ বৃহস্পতিবার থেকেই এই নির্দেশ কার্যকর হয়ে গিয়েছে। এমতাবস্থায়, এই ব্যাঙ্ক এখন থেকে কোনো অর্থ জমা নিতে পারবে না বা টাকাও দিতে পারবে না। অর্থাৎ, সব ধরণের আর্থিক লেনদেন বন্ধ হয়ে গিয়েছে।

কিভাবে টাকা ফেরত পাবেন আমানতকারীরা: এই প্রসঙ্গে RBI-এর তরফে জানানো হয়েছে, বর্তমানে লক্ষ্মী কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্ক লিমিটেডের আর্থিক অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে আমানতকারীদের পুরো অর্থ ফিরিয়ে দেওয়া সম্ভব নয়। এমতাবস্থায়, DICGC মারফত আমানতকারীরা মাথাপিছু পাঁচ লক্ষ টাকা করে পাবেন বলে জানা গিয়েছে।

Related Articles