টাইমলাইনবিনোদন

সৌজন‍্য-গুনগুনের মাঝে ঢুকবে না, রাস্তায় বেরোলেই শাসানি জুটছে ‘খড়কুটো’র তিন্নি দিদি ওরফে রুক্মার

বাংলাহান্ট ডেস্ক: স্টার জলসার (star jalsha) অন‍্যতম জনপ্রিয় বাংলা সিরিয়াল (serial) ‘খড়কুটো’ (khorkuto)। সিরিয়ালের টিআরপি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে চরিত্রগুলির জনপ্রিয়তা। দর্শকদের মুখে মুখে ঘুরছে এখন ‘সৌগুন’ এর নাম। খড়কুটোর নায়ক নায়িকা সৌজন‍্য (soujonno) ও গুনগুনের (gungun) জুটিকে ভালবেসে এই নামই দিয়েছেন অনুরাগীরা। তবে এর সঙ্গে আরো একটি নামও জায়গা করে নিয়েছে। আর তা হল ‘তিন্নি দিদি’ (tinni didi)।

তিন্নি দিদি ওরফে অনন‍্যা হল গুনগুনের তুতো বোন। সিরিয়ালের ‘ভিলেন’ বলতে যা বোঝায় তিন্নি দিদি হল সেই। স্বভাব চরিত্রে, পড়াশোনায় গুনগুনের থেকে তাঁর ফারাক অনেক। আর সেটাই ঠারেঠোরে সবাইকে বুঝিয়ে দিতে ছাড়ে না অনন‍্যা। সৌজন‍্যর দিকে তাঁর নজর প্রথম থেকেই। আর এতেই অনন‍্যার উপর মহা খাপ্পা সৌজন‍্যর পরিবার থেকে শুরু করে দর্শকরা পর্যন্ত।

untitled 17 Bangla Hunt Bengali News
সোশ‍্যাল মিডিয়ায় মিম, ট্রোল তো রয়েছেই, রাস্তায় বেরোলেও নাকি দর্শকদের ক্ষোভ থেকে রেহাই পাচ্ছেন না অনন‍্যা। এমনটাই সম্প্রতি এক সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ‍্যমকে জানালেন রুক্মা রায়। তিনিই পর্দায় তিন্নি দিদি ওরফে অনন‍্যা।

সংবাদ মাধ‍্যমকে তিনি জানান, রাস্তায় একজন নাকি তাঁকে চিনতে পেরে শাসিয়েছেন, সৌজন‍্য ও গুনগুনের মাঝে না ঢুকতে। এমন শাসানি পেয়ে কি প্রতিক্রিয়া রুক্মার? ভয় বা মন খারাপ তো দূর, নেগেটিভ চরিত্রে অভিনয় করেও উচ্ছ্বসিত অভিনেত্রী। তিনি যে চরিত্রটা যথাযথ ভাবে পর্দায় ফুটিয়ে তুলে পেরেছেন তা তো বলাই বাহুল‍্য। সেই কারণেই নেগেটিভ চরিত্রটির উপর এত রাগ মানুষের।

তবে সকলেই যে শাসানি দিচ্ছে এমনটা কিন্তু নয়। রুক্মা জানান, অনন‍্যার অনেক শুভানুধ‍্যায়ীও রয়েছে যারা সোশ‍্যাল মিডিয়ায় তাঁকে বলছে সৌজন‍্যকে ছেড়ে বরং অন‍্য কাউকে খুঁজতে। জোর করে যে প্রেম হয় না। তবে রুক্মা জানান, এই ঝগড়াঝাঁটি, ঝামেলা সবই কিন্তু ক‍্যামেরার ওপারে। এপারে সৌজন‍্য, গুনগুন, অনন‍্যা সবাই খুব ভাল বন্ধু।

Back to top button