টাইমলাইনভারতরাজনীতি

যোগীরাজ্যেও ‘খেলা হবে”, বারাণসীর অলিগলিতে চকচক করছে তৃণমূলের স্লোগানের ভোজপুরি ভার্সন

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ২০২১-এর পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে সবথেকে চর্চিত হয়ে উঠেছিল ‘খেলা হবে” স্লোগান। বিজেপি সমেত রাজ্যের সমস্ত বিরোধী দলগুলো তৃণমূলের দেওয়া এই স্লোগানকে উস্কানিমূলক আখ্যা দিয়ে বিরোধিতা করলেও, তৃণমূল কংগ্রেস এই স্লোগান দেওয়া থেকে বিরত হয়নি। স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে সব মঞ্চেই এই স্লোগান দিয়েছেন। এমনকি তিনি এই স্লোগানটি উস্কানিমূলক নয় সেটা প্রমাণ করতে মঞ্চে উঠে ফুটবল নিয়েও খেলেছেন।

এবার তৃণমূলের সেই বিখ্যাত স্লোগান বাংলা পেড়িয়ে যোগীর রাজ্য উত্তর প্রদেশের বারাণসীতে গিয়ে পড়ল। বাংলার ‘খেলা হবে” স্লোগানের ভোজপুরি ভার্সন বের করে সমাজবাদী পার্টি ‘খেলা হোই” স্লোগান তুলছে। প্রথমে ‘খেলা হোই” স্লোগান উঠেছিল উত্তর প্রদেশের কানপুরে। এবার সেটি সেখান থেকে যোগীরাজ্যের পুর্বাঞ্চলেও আছড়ে পড়েছে। ২০২২-এর বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি হিসেবে সমাজবাদী পার্টির প্রাক্তন বিধায়ক এই স্লোগান ব্যবহার করা শুরু করেছেন। তৃণমূলে থেকে অনুপ্রেরণা পেয়ে খেলা হবের ভোজপুরি ভার্সন এখন মোদীর সংসদীয় এলাকাতে দেখা যাচ্ছে।

বারাণসীতে এই স্লোগানের ব্যবহার শুরু করেছেন প্রাক্তন বিধায়ক আন্দুল সামাদ আনসারি। তিনি এলাকার বিভিন্ন জায়গায় সাইকেল আঁকিয়ে ‘খেলা হোই” স্লোগান লেখাচ্ছেন। ওনার পুরো স্লোগানটি হল, ‘আশার সাইকেল ২০২২ এ খেলা হোই।” এই বিষয়ে সমাজবাদী পার্টির প্রাক্তন বিধায়ক আবদুল সামাদ বলেন, খেলা হবের স্লোগান গোটা ভারতে বিখ্যাত হয়েছে, আর বাংলা সেটা প্রমাণ করেছে।

তিনি বলেন, জনতা এই স্লোগানটি বেশ পছন্দ করছে। বিজেপির সরকারের প্রতি মানুষের মন উঠে গিয়েছে। দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি, চিকিৎসা, ওষুধ, করোনা, দারিদ্রতা, কৃষক, জওয়ান আর যুবকদের সাথে অন্যায় হয়েছে। বিজেপি সরকার সব্দিকেই ব্যর্থ হয়েছে। আর সেই কারণে এবার মানুষকে ভরসা দিতে আমি এই স্লোগান লিখিয়েছি। আমরা ২০২২-এ নির্বাচনে জয়লাভ করে সরকার গড়ছি।

Related Articles

Back to top button