টাইমলাইনবিনোদনভিডিও

বিয়ের তিন মাস কাটতে না কাটতেই স্বামীর বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ সানা খানের, নিলেন বড় সিদ্ধান্ত

বাংলাহান্ট ডেস্ক: গত বছরের শেষের দিকে রাতারাতি সব লাইমলাইট কেড়ে নিয়েছিলেন বলিউডের প্রাক্তন অভিনেত্রী সানা খান (sana khan)। গত অক্টোবরে হঠাৎ করেই তিনি সিদ্ধান্ত নেন ধর্মের পথে চলার জন‍্য বিনোদন জগৎকে বিদায় জানানোর। তারপর নভেম্বর মাসেই বিয়ের (marriage) খবর দেন সানা। মুফতি সৈয়দ আনাসকে নিকাহ করেন তিনি। এখন বিবাহিত জীবনে বেশ সুখেই রয়েছেন সানা।

কিন্তু হঠাৎ করেই তাঁর সুখী দাম্পত‍্য জীবনে বেশ গুরুতর সমস‍্যা দেখা দিয়েছে। সানার স্বামীর এখন মনে হচ্ছে তিনি আগের থেকে বেশ মোটা হয়ে গিয়েছে। শুধু স্বামীই নন, সানার মারও মত আগের থেকে ওজন বেড়েছে তাঁর। একটি ভিডিও শেয়ার করে এমনটাই জানিয়েছেন প্রাক্তন অভিনেত্রী।


ভিডিওতে সানা জানিয়েছেন, শীঘ্রই ওয়ার্ক আউট শুরু করার কথা ভাবছেন তিনি। কারণ তাঁর স্বামী ও মায়েরও এমনটাই মত। ভিডিও কল করলেও সানার মা তাঁকে বলেন তাঁর গাল গুলো নাকি গুলাব জামুনের মতো হয়ে গিয়েছে। তিনি ‘গোলু মোলু পোলু’ হয়ে গিয়েছেন। বিষয়টা যথেষ্ট গুরুতর বলে মনে করেন সানা।

সানা আরো বলেন, সব মায়েদের কাছেই তাদের সন্তানেরা কখনো মোটা হয় না। যতই ওজন বাড়ুক না কেন, সন্তানকে রোগা বলেই মনে হয় মায়েদের‍। তাই তাঁর মা যখন এমন বলছেন তখন নিশ্চয়ই তাঁর ওজন বেশ বেড়েছে বলে বক্তব‍্য সানার। তাই ওয়ার্ক আউট শুরু করতে চলেছেন তিনি। কিন্তু কখন করবেন তাই বুঝতে পারছেন না সানা।

 

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি সানার অর্ধনগ্ন কিছু ছবির কোলাজ ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সোশ‍্যাল মিডিয়ায়। দাবি করা হয়, সানার স্বামী আনাসই তাঁদের হানিমুনের ঘনিষ্ঠ ছবিগুলি ভাইরাল করেছেন সোশ‍্যাল মিডিয়ায়।

একটি টুইটে লেখা হয়, ‘হানিমুনে স্ত্রীর এমন ঘনিষ্ঠ অবস্থার ছবি কোনো স্বামী কিকরে শেয়ার করতে পারেন? সানার স্বামী এমনটা কিকরে করলেন?’ আরেকজন মন্তব‍্য করেন, সানার এই ধরনের ছবি তাঁকে মৌলবাদীদের নিশানা বানাতে পারে।

কিন্তু আসল সত‍্যিটা ঠিক কি? তথ‍্য অনুসন্ধান করে দেখা যায়, সানার ওই ছবির কোলাজের দুটি ছবিই পুরনো। একটি ছবি ‘ওয়াজাহ তুম হো’ ছবির একটি গানের দৃশ‍্যের। সেখানে শুধু একটি অন্তর্বাস পরে ক‍্যামেরাবন্দি হয়েছিলেন অভিনেত্রী। অপর ছবিটি তাঁর পুরনো একটি ফটোশুটের।

তবে তৃতীয় ছবিটি তাঁর হানিমুনের এবং ছবিটি নিজেই সোশ‍্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিলেন সানা। সেখানে স্বামী আনাসকে জড়িয়ে ধরে থাকতে দেখা যায় তাঁকে। সব তথ‍্য মিলিয়ে এটা স্পষ্ট হয় যে ছবিগুলি ভুয়ো খবর ছড়াতেই ভাইরাল করা হয়েছে সোশ‍্যাল মিডিয়ায়।

Back to top button