টাইমলাইনভারতআন্তর্জাতিক

সন্ত্রাসী বুরহান ওয়ানিকে শহীদ আখ্যা শাহবাজ শরীফের, নির্লজ্জতার সীমা ছাড়াল পাক বিদেশ মন্ত্রকও

বাংলাহান্ট ডেস্ক : যে যায় লঙ্কায় সেই হয় রাবণ। এই প্রবাদটি পাকিস্তানের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। পাকিস্তানের সিংহাসনে যেই বসুক বা কেন, ভারতের সঙ্গে শান্তি বন্ধুত্বের চেষ্টা করার বদলে শুধুমাত্র শুত্রুতাকেই বাহবা দিয়ে এতকাল। এবং ভবিষ্যতেও সেই প্রচেষ্টা কমানোর কোনও লক্ষ্মণ দেখাচ্ছে না পাকিস্তান। অতীতে নওয়াজ শরিফ (Nawaz Sharif) থেকে বর্তমানে শহবাজ শরিফ (Shahbaz Sharif) , প্রত্যেকেই ভারত বিদ্বেষের রাস্তাতেই হেঁটেছেন। শুক্রবার পাকিস্তানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শাহাবাজ শরিফ সন্ত্রাসবাদী (Terrorist) বুরহান ওয়ানির সমর্থনে এক নির্লজ্জ ট্যুইট করেন। সেই ট্যুইটে তিনি বুরহান ওয়ানিকে (Burhan Wani) ‘শহিদ’-এর মর্যাদা দিয়েছেন। পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রকও প্রধানমন্ত্রীর সুরেই সুর মিলিয়েছেন।

বুরহানের মতো মানুষরা কাশ্মীরের যুবকদের কাছে প্রেরণা

গতকালের ট্যুইটে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী লেখেন, ‘ ২০১৬ সালে আজকের দিনেই ভারত বুরহান ওয়ানিকে হত্যা করে। কাশ্মীরের মানুষের বুকে যে স্বাধীনতার আগুন জ্বলছে তা কোনও দিনই নিভে যাবে না। বুরহানের মতো মানুষরা কাশ্মীরের যুবকদের কাছে প্রেরণা।’ তবে এটাই প্রথম নয় যে পাকিস্তানী প্রকাশ্যেই কোনও সন্ত্রাসবাদীকে সমর্থন করছে। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান (Imran Khan) তো একবার আল-কায়দা (Al Qaeda) প্রধান ওসামা বিন লাদেনকেও (Osama Bin Laden) ‘শহীদ’ আখ্যা দেন। প্রধানমন্ত্রী এই মন্তব্য করার পরই তাঁকে সমর্থন করে পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রকও। তারা মন্তব্য করে, ‘আজ কাশ্মীরের নেতা বুরহান মুজফফর ওয়ানির ষষ্ঠ মৃতুবার্ষিকী। পাকিস্তানের মানুষ এবং পাকিস্তান সরকার তাঁর নিঃস্বার্থ বলিদানের জন্য তাঁকে শ্রদ্ধা জানাচ্ছে।’ এরা আগেও বহু বার আন্তর্জাতিক স্তরে পাকিস্তান কাশ্মীর নিয়ে বিতর্ক শুরু করে। এবং প্রত্যেকবারই ভারত তো বটেই, তাদের ‘বন্ধু’ রাষ্ট্র চিনের কাছেও কথা শুনতে হয় পাকিস্তানকে। তারপরেও শোধরাবার নামই করেনা ভারতের প্রতিবেশী এই রাষ্ট্রটি।

সিংহাসনে বসার পরই পাকিস্তানের ঐতিহ্য বজায় রেখে কাশ্মীর-কাশ্মীর (Kashmir) বলে লাফালাফি শুরু করে দিয়েছেন শাহাবাজ শরিফ। ধারা ৩৭০ উঠিয়ে নেওয়া নিয়েও সরব হয় পাকিস্তান। শাহাবাজ হুমকি দেন, কাশ্মীরের রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে তিনি আবারও আন্তজার্তিক মহলের সমর্থন আদায়ের চেষ্টা করবেন। তিনি বলেন, ‘আমরা ভারতের সঙ্গে সুস্থ সম্পর্ক চাই, কিন্তু কাশ্মীরে শান্তি প্রতিষ্ঠার আগে তা কোনও ভাবেই সম্ভব নয়।’

Related Articles