fbpx
টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

দিঘায় মত্স্যজীবীদের জালে ধরা পড়ল বিশালাকৃতির মানুষ খেকো মাছ

বাংলা হান্ট ডেস্ক : ইতিমধ্যেই বুধবার থেকেই দিঘায় বাণিজ্যিক সম্মেলন চলছে, তাই তো দিঘা জুড়ে সাজো সাজো রব কারণ সেখানে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিঘার সমুদ্র সৈকতের উন্নয়নের জন্য একাধিক প্রস্তাব দিয়েছেন। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি বিদেশি কম্পানি বিনিয়োগের কথাও ঘোষণা করেছে তবে এরই মধ্যে দিঘায় আরও একটি চমকপ্রদ ঘটনা ঘটল যদিও বিরল বললেও ভুল হয় না। বৃহস্পতিবার সকালে দিঘার সমুদ্র সৈকতে ট্রলারের জালে ধরা পড়ল একটি মানুষ খেকো বিরাট আকৃতির মাছ।

যা নিয়ে সমুদ্র সৈকতে থাকা সমস্ত দর্শকদের মধ্যে উত্তেজনার শেষ ছিল না। এমন ঘটনা খুব একটা চোখে দেখা যায় না তবে মাছটির আকৃতি এতটাই বড় যে পর্যটকরা ক্যামেরা বন্দি পড়তে গিয়ে হিমসিম খেয়ে যায়। যদিও এমন বড় মাছের সুযোগ পেয়ে হাতছাড়া করেননি ব্যবসায়ীরা তাই সঙ্গে সঙ্গে নিলামে ওঠে প্রায় সাত কুইন্টালের এই মাছটি। নিলামের মাধ্যমে পাঁচ হাজার টাকা মূল্যে সেটি বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। জানা গিয়েছে সেটি তিল শঙ্কর মাছ।

যদিও মানুষ থেকে বলা হচ্ছে কিন্তু এই মাছের শরীরের গুরুত্বপূর্ণ অংশ ওষুধ তৈরির কাজে লাগে। যদিও এই প্রথমবার নয় এর আগেও দিঘায় এমন মাছ ধরা পড়েছিল কিন্তু ওজন বা চেহারায় এতটাই বড় ছিল না। তবে যে মতসজীবের ট্রলারেই এই মাছটি ধরা পড়েছে সেই মত্স্যজীবীরআর্থিক দিক দিয়ে অনেকটাই লাভ হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।তবে মাছটিকে অনেকেই আবার শঙ্কর মাছ বলছেন।

কেউ আবার বলছেন মাছটির ওজন নাকি আট কেজি যদিও এই মাছটি নিয়ে নানা মুনির নানা মত সে সব দূরে রাখলে এতে যে বিরলতম ঘটনা তা কিন্তু বলার অপেক্ষা রাখে না। আসলে সমুদ্র যখন তাপমাত্রা বেড়ে যায় তখন এই মাছগুলির দিক পরিবর্তন করে আর তার পর মাছ ধরতে যাওয়া ট্রলারে ধরা পড়ে যায় যদিও যখন ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে।

যেহেতু বিদেশে এই ধরনের মাছের প্রচুর চাহিদা রয়েছে কিন্তু সেভাবে জালে ধরা পড়ে না তাই রপ্তানিতে একটু হলেও অসুবিধা হয় কিন্তু দেশের পাশাপাশি স্থানীয় বাজারেও এই মাছের বেশ চাহিদা রয়েছে।

Back to top button
Close
Close