টাইমলাইনবিনোদন

সোনাক্ষীর ছবি ফ্লপ হলে তো কেউ নেপোটিজমের কথা তোলে না, বিষ্ফোরক শত্রুঘ্ন সিনহা

বাংলাহান্ট ডেস্ক: সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত‍্যুর পরেই বলিউডে নেপোটিজম (nepotism) নিয়ে জোর সমালোচনা শুরু হয়েছে। আলিয়া ভাট, সোনম কাপুর, অনন‍্যা পাণ্ডে সহ বেশ কয়েকজন তারকা সন্তান পড়েছেন নেটিজেনের ক্ষোভের মুখে। ট্রোলের সম্মুখীন হয়ে অনেকে ইনস্টাগ্রামে কমেন্ট করার সীমা বেঁধে দিয়েছেন।
অপরদিকে সমালোচনা সহ‍্য করতে না পেরে পত্রপাঠ সোশ‍্যাল মিডিয়া থেকে বিদায় নিয়েছেন সোনাক্ষী সিনহা (sonakshi sinha)। এবার নেপোটিজম নিয়েই মুখ খুলতে দেখা গেল বর্ষীয়ান অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিনহাকে। এক সংবাদ মাধ‍্যমের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে নিজের অভিনয় জীবন ও রাজনৈতিক জীবন নিয়ে নানা কথা বলেন তিনি।
অভিনেতার কথায়, “আজ পর্যন্ত যা যা পেয়েছি সবই নিজের পরিশ্রমের ফল। অভিনয়, রাজনীতি কোথাওই নেপোটিজমের সহায়তা নিইনি আমি। রাজনীতিতে আমি লালকৃষ্ণ আডবানী ও অটল বিহারী বাজপেয়ীর কাছে কৃতজ্ঞ। তবে যাই করেছি নিজের জোরে করেছি।”


শত্রুঘ্ন সিনহা আরও বলেন, ‘ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে শুধু সফলতা ও ব‍্যর্থতা চলে। সফল বিহার থেকে আসা শত্রুঘ্নও হতে পারেন, কলকাতা থেকে আসা মিঠুন চক্রবর্তীও হতে পারেন। এখানে সফলতাই ভবিষ‍্যৎ নির্ধারন করে।’
নেপোটিজম ইস‍্যুতে অভিনেতার বক্তব‍্য, যেকোনও তারকার সফলতা স্থির করে দর্শকরা। তারা চাইলে তারকাকে নিমেষের মধ‍্যে রাস্তায় নামিয়ে আনতে পারে। কিন্তু আত্মহত‍্যা কোনও সমস‍্যার সমাধান নয়। সুশান্তের সম্পর্কে এমনই মন্তব‍্য করেন অভিনেতা।
সোনাক্ষীর সম্পর্কে শত্রুঘ্ন বলেন, “সোনাক্ষী ট্রোলের জন‍্য সোশ‍্যাল মিডিয়া বন্ধ করে দিয়েছে। কিছু মানুষের কাজই শুধু সমালোচনা করা। আমার দুই ছেলে লব ও কুশের আজ যেখানে থাকার কথা ছিল সেখানে নেই। সোনাক্ষীর সিনেমা চললে তা দর্শকের জন‍্যই চলেছে। লুটেরা ও আকিরা ছবিদুটি যেমন হিট হওয়ার কথা ছিল তেমন হয়নি। তখন তো কেউ নেপোটিজমের কথা উচ্চারণও করেনি”।

Back to top button