টাইমলাইনআন্তর্জাতিক

পরনে টপ, ঠোঁটে লিপস্টিক! বোরখা ছাড়াই প্রকাশ্যে এল ‘জিহাদি বধূ”

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ গোটা বিশ্বে ‘জিহাদি বধূ” নামে খ্যাত শামিমা বেগম এখন ISIS-র সঙ্গ ত্যাগ করেছে। শামিমা এখন তাঁর কৃতকর্মর কারণে পস্তাচ্ছে। আর এবার সে গুড মর্নিং ব্রিটেন শোয়ের লাইভ ইন্টারভিউতে জানিয়েছে যে, সন্ত্রাসবাদীদের কাছে যাওয়ার থেকে সে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়া পছন্দ করবে। শামিমা ব্রিটেনের মানুষের কাছে ক্ষমা চেয়ে দেশে ফিরে সন্ত্রাসবাদীদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত।

ইংলিশ মিডিয়ার রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০১৪ সালে শামিমা ব্রিটেন থেকে পালিয়ে ISIS জয়েন করেছিল। সেই সময় শামিমার বয়স মাত্র ১৫ বচহর ছিল। শামিমা ISIS-র এক জঙ্গিকে বিয়ে করে জিহাদে যুক্ত হয়। আর তাঁর দুটি সন্তানও হয়।

রিপোর্ট অনুযায়ী, এক বিশেষজ্ঞ বলেছেন যে, শামিমা বেগম এখন নিজেকে নিরীহ প্রমাণ করার কাজে লেগেছে। শামিমা বেগম গুড মর্নিং ব্রিটেন টিভি শোয়ে বলেছে, ‘আমি ব্রিটেনের মানুষের কাছে ক্ষমা চাইছি। আমি অনেক ছোট বয়সে একটি বড় ভুল করে ফেলেছিলাম। ওই বয়সের বেশীরভাগ কিশোর-কিশোরী নিজেদের ভালোমন্দ বুঝতে পারে না। ওই বয়সে বেশীরভাগ বাচ্চাই পথভ্রষ্ট হয় আর তাঁরা সহজেই সেসব জিনিশের প্রতি আকৃষ্ট হয়, যেগুলি তাঁদের জীবনে বড়সড় ক্ষতি করতে পারে।”

গুড মর্নিং ব্রিটেন শোয়ে প্রাক্তন আইসিস জঙ্গি শামিমা বেগমকে বোরখার বদলে কালো রঙয়ের টুপি, ধূসর রঙয়ের টপ আর লিপস্টিক এবং খোলা চুলে দেখা গিয়েছে। তাঁর এই নতুন রূপ শেষবারের সাক্ষাৎকারের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা ছিল। শেষবার তাঁকে বোরখা পরে সাক্ষাৎকারে অংশ নিতে দেখা গিয়েছিল।

বলে দিই, ২০২১-র মার্চে শামিমা বেগমকে বাংলাদেশ আর নেদারল্যান্ড বড়সড় ঝটকা দেয়। দুই দেশই তাঁকে নিজেদের দেশে শরণ দেবে না বলে জানিয়ে দেয়। এর আগে ২০১৯ সালে ব্রিটিশ সরকার তাঁর নাগরিকত্ব ছিনিয়ে নিয়েছিল।

Related Articles

Back to top button