টাইমলাইনভারত

বেরিয়ে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য! শোভনের আপত্তির ফলেই বিজেপিতে নেওয়া হলো না দেবশ্রী রায়কে

 

বাংলা হান্ট ডেস্ক : তীব্র জল্পনার পর অবশান ঘটিয়ে গেরুয়া শিবিরে যোগদান করতে দিল্লিতে উড়ে গিয়েছিলেন কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় ও তার ঘনিষ্ঠ বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। গত বুধবার বিকেলে বিজেপিতে যোগদান করার জন্য শোভন বাবু ও বৈশাখী দেবী বিজেপির সদর দপ্তরে গেলে দেবশ্রী রায় কেও এদিন বিজেপির সদর দপ্তরে দেখা যায়। স্বাভাবিকভাবেই জল্পনার সৃষ্টি হয় যে, তারা তিনজনেই গেরুয়া শিবিরে যোগদান করতে চলেছেন। তবে কর্মসূচি পালন করে বিজেপিতে যোগদান করার সনয় শুধু শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী দেবীকেই দেখতে পাওয়া যায়। দেবশ্রীকে তিন তলার একটি ঘরে বসে থাকতে দেখা যায়। যদিও তিনি কার সাথে দেখা করতে এসেছিলেন সে বিষয়ে এখনো ধোঁয়াশা রয়েছে।

এ বিষয়ে রাজ্যের বিজেপি নেতা মুকুল রায় কে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, “দেবশ্রীর সঙ্গে বিগত পাঁচ বছর আমার কোন যোগাযোগ নেই। তিনি কেন এবং কার সঙ্গে এখানে এসেছেন সে বিষয়ে আমার কিছু জানা ছিল না।”


এছাড়াও জানা গিয়েছে, বিজেপির কার্য বাহিনীর সভাপতি জে পি নাড্ডা কে শোভন চ্যাটার্জী স্পষ্ট জানিয়েছেন, “তৃনমূলে আমার বিরুদ্ধে চক্রান্ত করা হয়েছিল। তৃণমূলে যারা আমার বিরুদ্ধে চক্রান্ত করেছিল তাদের মধ্যে দেবশ্রী রায়ি ছিলেন। যাদের জন্য আমাকে তৃণমূলে অপদস্ত হতে হয়েছিল তাদের কেউ বিজেপিতে এলে সেটাই আমার বিজেপিতে শেষ দিন হবে।”এই এই ধরনের কোন পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে না বলে নাড্ডা শোভনবাবুকে আশ্বাসও দিয়েছেন।

সূত্র অনুযায়ী জানা গিয়েছে, রাজ্যে বিজেপির সহ-সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদারের সঙ্গে যোগাযোগ করেই দিল্লিতে যোগ দিতে এসেছিলেন দেবশ্রী। যদিও এই কথা ভিত্তিহীন বলে দাবী করে জয়প্রকাশ বলেছেন, ” আমার উপর দায়িত্ব ছিল শোভন চ্যাটার্জি এবং বৈশাখী ব্যানার্জি কে এখানে আনার। সেই দায়িত্ব আমি পালন করেছি। এখানে এসে জানতে পারি দেবশ্রীও এসেছেন। ওপরে বসে আছেন। যদিও আমার সঙ্গে তার দেখা হয়নি। আমি তাকে এদিন চোখেও দেখিনি। এদিন সিদ্ধান্ত হয় আমরা তাকে নেব না কারণ বিজেপিতে যোগদান করার একটি নিয়ম ও পদ্ধতি আছে।

Related Articles

Back to top button