চাকরির খবরপশ্চিমবঙ্গ

বাংলার যুবক যুবতীদের জন্য সুখবর: স্কিল ইন্ডিয়া প্রকল্পের অধীনে ২৩টি জেলায় মিলবে বিনামূল্যে অ্যাপ্রেন্টিশিপ প্রশিক্ষণ

বাংলা হান্ট ডেস্ক: ২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পর থেকেই দেশের যুব প্রজন্মের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে স্ক্লিল ইন্ডিয়া প্রকল্পের সূচনা করেছিলেন নরেন্দ্র মোদী। সেই প্রকল্পের অধীনেই এবার দেশজুড়ে বিনামূল্যে যুবক-যুবতীদের ট্রেনিং দেওয়া হবে। সম্প্রতি সারা দেশে ৮৫০০টি শূন্যপদে অ্যাপ্রেন্টিস প্রশিক্ষণের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে ভারতীয় স্টেট ব্যাঙ্ক। স্কিল ইন্ডিয়ার (Skill India) অধীনে এই ট্রেনিং দেওয়া হবে।

পশ্চিমবঙ্গের (West Bengal) ২৩ টি জেলায় বিনামূল্যে চাকরিপ্রার্থীরা প্রশিক্ষণ নিতে পারবেন। রাজ্যের যেকোনো জেলার ছেলে-মেয়ে আবেদন করতে পারবেন। প্রশিক্ষণ কালে স্টাইপেন্ড দেওয়া হবে।

প্রশিক্ষণের নাম- অ্যাপ্রেন্টিসশিপ ট্রেনিং

মোট শূন্যপদ- ৮৫০০। পশ্চিমবঙ্গে শূন্যপদ ৪৮০ (SC- ১১০, ST- ২৪, OBC- ১০৫, EWS- ৪৮, UR-১৯৩)।

জেলাভিত্তিক শূন্যপদ-

আলিপুরদুয়ার- ৬, বাঁকুড়া- ২৮, বীরভূম- ২১, কোচবিহার- ১১, দক্ষিণ দিনাজপুর- ১৩, দার্জিলিং- ৯, হুগলী- ৩৮, হাওড়া- ২৬, জলপাইগুড়ি- ৬, ঝাড়গ্রাম- ১৭, মালদা- ২৪, মুর্শিদাবাদ- ৪০, নদিয়া- ২৫, উত্তর ২৪ পরগনা- ২৪, পশ্চিম বর্ধমান- ৪, পশ্চিম মেদিনীপুর- ২৭, পূর্ব বর্ধমান- ৫১, পূর্ব মেদিনীপুর- ২৭, পুরুলিয়া- ২০, দক্ষিণ ২৪ পরগনা- ৪৭, উত্তর দিনাজপুর- ১২।

প্রশিক্ষণের সময়সীমা- ৩ বছর। প্রশিক্ষণ চলাকালীন চাকরিপ্রার্থীদের IIBF (JAIIB/CAIIB) পরীক্ষায় পাশ করতে হবে।

স্টাইপেন্ড- প্রশিক্ষণের প্রথম বছর মাসে ১৫,০০০ টাকা, দ্বিতীয় বছরে মাসে ১৬,৫০০ টাকা ও তৃতীয় বছরে মাসে ১৯,০০০ টাকা স্টাইপেন্ড দেওয়া হবে।

বয়স- প্রশিক্ষণে আগ্রহীদের বয়স ২০ থেকে ২৮ বছর হতে হবে। বয়সের হিসাব ৩১ অক্টোবর, ২০২০ সালের নিরিখে হবে। সংরক্ষিত শ্রেণীর প্রার্থীরা সরকারি নিয়মানুসারে ছাড় পাবেন।

শিক্ষাগত যোগ্যতা- যে কোনও শাখায় গ্রেজুয়েশন।

আবেদনের পদ্ধতি- অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আইবিপিএস -এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে আবেদন করতে হবে। আবেদনকারীর বৈধ মোবাইল নম্বর ও ইমেল আইডি থাকা বাঞ্ছনীয়। সবার আগে রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। সেই সময় আবেদনকারীর মোবাইলে ও ইমেলে রেজিস্ট্রেশন নম্বর ও পাসওয়ার্ড আসবে। তা ব্যবহার করে লগ ইন করে আবেদন করতে হবে। অনলাইনে আবেদনের শেষ তারিখ ১০ ডিসেম্বর, ২০২০ পর্যন্ত।

আবেদন ফি- জেনারেল, ওবিসি ও ইডব্লিউএস প্রার্থীদের জন্য ৩০০ টাকা। এসসি, এসটি ও প্রতিবন্ধী প্রার্থীদের আবেদন ফি লাগবে না।

নিয়োগ পদ্ধতি- পরীক্ষা হবে দুটি ধাপে। প্রথমে অনলাইনে পরীক্ষা, এটি হিন্দি ও ইংরাজি ভাষায় হবে। তাতে উত্তীর্ণ হলে দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা। পশ্চিমবঙ্গে বাংলা ও নেপালি ভাষায় এই পরীক্ষা হবে। আসানসোল, দুর্গাপুরম কলকাতা, হুগলী, কল্যাণী ও শিলিগুড়িতে প্রথম ধাপের পরীক্ষা হবে।

প্রথম ধাপের পরীক্ষার সিলেবাস-

General/ Financial Awareness- 25 marks

General English- 25 marks

Quantitive Aptitude- 25 marks

Reasoning Ability and Computer Aptitude- 25 marks

প্রথম ধাপের পরীক্ষায় প্রতিটি প্রশ্নের মান ১ নম্বর। চারটি পার্ট থাকবে, সময়সীমা ১৫ মিনিট করে। মোট এক ঘণ্টার পরীক্ষা, নেগেটিভ মারকিং আছে।

Back to top button