টাইমলাইনআন্তর্জাতিকআবহাওয়া

শীঘ্রই ধ্বংস হবে পৃথিবী, স্যাটেলাইটের ছবি দেখে আতঙ্কিত আবহাওয়া গবেষকরা

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ পৃথিবী ঠিক কবে ধ্বংস হবে সেই নিয়ে মানুষের আগ্রহ চিরকালের। বার বার বিজ্ঞানী থেকে শুরু করে দার্শনিকেরা ঘোষনা করেছেন পৃথিবী ধ্বংসের দিনক্ষন। গত ২০১২ বারো সালেই এই গুজব চরমে উঠেছিল, মায়ান ক্যালেন্ডার অনুসারে এটিই নাকি ছিল পৃথিবীর শেষ দিন। কিন্তু তার ৮ বছর পরেও বহাল তবিয়তেই আছে মেদিনী।

কিন্তু এবার খুব শীঘ্রই পৃথিবী ধ্বংসের দিকে চলেছে বলে জানালেন বিজ্ঞানীরা।স্যাটেলাইট এর মাধ্যমে গবেষকরা দেখতে পেয়েছেন আন্টার্কটিকার বরফ গলতে শুরু করেছে। সেখানে তাপমাত্রা ১৯ ডিগ্রীর কাছাকাছি। যার অর্থ বাড়ছে গোটা পৃথিবীর তাপমাত্রা। তাপমাত্রার সাথেই পাল্লা দিয়ে গলছে দুই মেরুতে জমে থাকা বরফ। যার ফল স্বরূপ বাড়ছে জল স্তর। হিসেব অনুযায়ী জলস্তর বৃদ্ধি পাবে ১০ ফুট।

জলস্তর ১০ ফুট বেড়ে গেলে সমুদ্র উপকূলবর্তী দেশ গুলি তলিয়ে যাবে সমুদ্রের তলায়। রিপোর্টে জানা যাচ্ছে, আশঙ্কায় রয়েছে ৪৫ টি শহর। ভারতের যে চারটি শহর আশঙ্কায় রয়েছে সেগুলি হল কলকাতা, মুম্বাই, চেন্নাই ও সুরাত।

প্রসঙ্গত,  বুলগেরিয়ার বাসিন্দা বাবা ভ্যাঙ্গা। যার আসল নাম ভ্যাঙ্গেলিয়া প্যানদেভা দিমিত্রোভা। থট রিডিং, অলৌকিক উপায়ে রোগ নিরাময় ইত্যাদি ক্রিয়ার কারণে তিনি খ্যাতি পেয়েছেন। তাঁর মতে ২১৩০ সাল নাগাদ মানুষ পানির তলায় বসবাসের বন্দোবস্ত করে ফেলবে। ২০৪৫ সাল নাগাদ বিশাল হিমশৈল গুলো গলতে শুরু করবে। পৃথিবীর অস্তিত্ব সংকট দেখা দেবে তখন। তবে এই ভবিষ্যত বানী কতখানি সফল হবে সময় সে কথা বলবে।

Related Articles

Back to top button