টাইমলাইনবিনোদন

চলে গেলেন ফেলুদা, শোকের ছায়া অভিনয় জগতে

বাংলাহান্ট ডেস্ক: হার মানলেন বর্ষীয়ান অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ‍্যায় (soumitra chatterjee)। রবিবার সকালে বেলভিউ হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত‍্যাগ করেন তিনি। দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন তিনি। গতকাল, শনিবারই অবস্থা অত‍্যন্ত খারাপ হয়ে যায় তাঁর। পরিস্থিতি চিকিৎসকদের হাতের প্রায় বাইরে বেরিয়ে যায়। শেষ পর্যন্ত হার মানলেন তিনি। মৃত‍্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৬ বছর।

গত কয়েকদিন ধরেই শোনা যাচ্ছিল অবস্থা সঙ্কটজনক সৌমিত্র চট্টোপাধ‍্যায়ের। করোনা মুক্ত হয়ে বাড়ি চলে যাওয়ার পর নতুন করে অসুস্থ হয়ে পড়েধ তিনি। ফের ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। তারপর থেকেই কখনো ভাল কখনো খারাপ খবর শোনা যাচ্ছিল।

গত কয়েকদিন ধরে খবর মিলছিল চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন না সৌমিত্র। শনিবার সকাল থেকে অবস্থার দ্রুত অবনতি হতে থাকে। চিকিৎসকরা জানান, মাল্টি অরগ‍্যান ফেলিওর হয়েছে বর্ষীয়ান অভিনেতার। মস্তিষ্কও প্রায় অচল হয়ে গিয়েছে তাঁর। তবে ব্রেন ডেথের ব‍্যাপারে কাল কোনো খবর দেননি চিকিৎসকরা।

চিকিৎসকরা শেষ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছিলেন। খবর দেওয়া হয় অভিনেতার পরিবারকে। গত চল্লিশ দিন ধরে ক্রমাগত মনের জোরে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছিলেন বর্ষীয়ান অভিনেতা। চিকিৎসক সহ তাঁর অগুনতি অনুরাগীর প্রার্থনা ছিল, এই লড়াইয়ে জয়ী হোন বাঙালির ফেলুদা। আবারো একবার সুস্থ হয়ে হাসিমুখে বাড়ি ফিরে আসুন। কিন্তু সবার সব প্রার্থনা বিফলে গেল।

প্রসঙ্গত, কয়েকদিন আগে হঠাৎ করেই রটে যায় সৌমিত্র চট্টোপাধ‍্যায়ের মৃত‍্যুর ভুয়ো খবর। সোশ‍্যাল মিডিয়ায় শোকবার্তা প্রকাশ করতে থাকেন অনেকে। এমনকি তাঁর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থার ছবিও ভাইরাল হয়ে যায়। মুখ খোলেন মেয়ে পৌলমী। তিনি স্পষ্ট জানান, কোনো রকম গুজবে কান দেবেন না। তাঁর গোপনীয়তাকে সম্মান জানানোর অনুরোধও করেন তিনি।

Back to top button