টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গবিধানসভা নির্বাচনকলকাতা

‘মমতা সবাইকে খেলিয়েছে, এবার সবাই মমতাকে খেলাবে’অভিষেককে তীব্র কটাক্ষ সৌমিত্র খাঁর

বাংলাহান্ট– ভারতীয় জনতা পার্টি পরিবর্তন যাত্রা শুরু করেছে। ভারতবর্ষের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ও বিজেপির সভাপতি জেপি নাড্ডারা পাঁচটি জায়গা থেকে শুভ সূচনা করেন।এবং ৫টি পরিবর্তন যাত্রার গাড়ি কলকাতায় এসে উপস্থিত হবে এবং সেখানে ব্রিগেডের সভা করবেন নরেন্দ্র মোদি। বিধানসভা ভোটের আগে এই পরিবর্তন যাত্রা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। তৃণমূলের পক্ষ থেকেও সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ‘দিদির দূত’ নামে গাড়ি বের করেছে। কিন্তু বিজেপি যেভাবে সারা রাজ্য জুঁড়ে এই পরিবর্তন যাত্রা করছে তাতে সাধারণ মানুষও এই যাত্রায় সামিল হচ্ছেন।

আজ বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ তথা ভারতীয় জনতা পার্টির রাজ্যের সভাপতি সৌমিত্র খাঁও বর্ধমানে এই পরিবর্তন যাত্রার শুভসূচনা করেন।সেখানে তিনি বলেন, ‘তৃনমূল দলটাতেই ভালো মানুষ থাকতে পারে না। আর যারা বলছে খেলা হবে তারা খেলবে কাদের সাথে!কারণ চিরঞ্জিত বাবুও বেসুরো।

যশ দাশগুপ্ত আজ বিজেপিতে যোগদান করেছেন এছাড়া একাধিক বড়নেতা, অভিনেতা, ও অভিনেত্রীও যোগদান করেন। অর্থাৎ প্রত্যেকদিন বিজেপিতে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা যোগদান করছেন।তৃণমূলের খেলা শেষ।’

তিনি আরও বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রথমবার যখন সাংসদ হয়েছিলেন কংগ্রেসের টিকিটে জয় লাভ করেছিলেন।কয়লা মন্ত্রী,রেল মন্ত্রী,এবং সর্বভারতীয় যুব সভাপতি করেছিল। কংগ্রেসের সাথে বেইমানি করে অন্য দল তৈরি করেছেন।তারপর বিজেপির হাত ধরে দলটি বাঁচিয়েছেন।আবার বিজেপিকে বিপদে ফেলেছেন।ফের ২০১১ সালে ক্ষমতায় আসার আগে কংগ্রেসের সাথে জোট করে।এবং ক্ষমতায় আসার পর কংগ্রেসকে লাথি মেরেছে।

এবার হয়তো সিপিএমের পা ধরে ভোটের বৈতরণী পার করতে চাইবেন বলে দাবি করেন সৌমিত্র খাঁ।তিনি আরোও বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ে দেখবে এবার তাকে সবাই মিলে খেলাবে। এছাড়াও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে তীব্র কটাক্ষ করে তিনি বলেন,’ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও কোন দিন বিজেপিতে যোগদানের জন্য হাতে পায়ে ধরবে এবং সেটা হয়তো আমাদের দেখতে হবে।’

https://fb.watch/3I_Rt3HdFV/

সৌমিত্র খাঁ দাবি করেছে, ‘২০০ র বেশি আসন নিয়ে বিজেপি ক্ষমতায় আসবে এবং সোনার বাংলা গড়বে। তৃনমূল ১০ বছর পরে বলছে খেলা হবে কিন্তু একবারও তাদের মুখে শোনা যাচ্ছেনা কারখানা হবে, শিল্প হবে, কর্মসংস্থান হবে, খাদ্য দেওয়া হবে, বাসস্থান দেওয়া হবে। তারা মানুষকে ভয়-ভিত্তি করে রাখার জন্য এই শ্লোগানকে হাতিয়ার করে ভোটের বৈতরণী পার করতে চাইছে কিন্তু বাস্তবে তা হবে না।’রাজনৈতিক মহল মনে করছে, বিজেপি এবার ১৬০এর বেশি সিট নিয়ে খমতা দখল করবে বাংলায়। এখন দেখার বিষয় শেষ মুহূর্তে শেষ হাসি কে হাসে।

Related Articles

Back to top button