টাইমলাইনভারতরাজনীতি

ইসলামের সাথে সন্ত্রাসবাদকে যুক্ত করার ষড়যন্ত্র চলছে, অন্যায় হয় বলেই ওঁরা জঙ্গি হয়! বললেন আবু আজমি

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ সমাজবাদী পার্টির (Samajwadi Party) নেতা আবু আজমি (Abu Azmi) বলেন, সন্ত্রাসবাদের সাথে ইসলামকে যুক্ত করা গভীর ষড়যন্ত্র মাত্র। শুধু তাই নয়, উনি কোনও মুসলিমের সন্ত্রাসী হওয়ার পিছনে কারণও ব্যাক্ত করেন। আবু আজমি বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বয়ানকে স্বাগত জানাই, কিন্তু এটাও জেনে রাখা দরকার যে, অত্যাচার আর অন্যায়ের কারণে সন্ত্রাসবাদের জন্ম হয়। যদি কোথাও ঝামেলা হয়, মহিলাদের সাথে দুর্ব্যবহার হয়, ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া হয়, তখনই মানুষ ন্যায় না পেলে সন্ত্রাসের রাস্তা আপন করে নেয়।”

উনি আরও বলেন, ‘এটা এই জগতের নিয়ম যে, অ্যাকশন হলে রিয়াকশন হবেই। আর এই কারণে ইসলামের সাথে সন্ত্রাসবাদকে জুড়ে দেওয়া একটি গভীর ষড়যন্ত্র।”

জানিয়ে দিই, শনিবার সরদার প্যাটেলের ১৪৫ তম জয়ন্তীর অবসরে প্রধান্মন্ত্র নরেন্দ্র মোদী সন্ত্রাসবাদ নিয়ে বড় বয়ান দেন। উনি সন্ত্রাসবাদকে মানবতার জন্য বৈশ্বিক চিন্তার কারণ বলে গোটা বিশ্বকে এক হওয়ার জন্য আবেদন করেন। উনি বলেন, ‘যেভাবে মানুষ সরাসরি সন্ত্রাসবাদের সমর্থন করছে, সেটি আজ গোটা বিশ্বের চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।” উনি সরাসরি ফ্রান্সে ঘটে যাওয়া ঘটনার কথা উল্লেখ করেন নি, কিন্তু নিজের কথাতে তিনি সন্ত্রাসবাদের সমর্থকদের একহাতে নিয়েছেন।

নিজের ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, আজ এই পরিস্থিতিতে বিশ্বের প্রতিটি দেশ, প্রতিটি সরকার, সমস্ত আদর্শের মানুষ গুলোকে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে এক হওয়া উচিৎ। শান্তি, ভ্রাতৃত্ববোধ আর পরস্পরের প্রতি আদরের মনোভাবই আসল পরিচয়। সন্ত্রাসবাদ আর হিংসা দিয়ে কখনো কারোর কল্যাণ হয়নি।

জানিয়ে দিই, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দুই দিনের গুজরাট সফরে আছেন। সেখানে তিনি স্ট্যাচু অফ ইউনিটিতে পৌঁছে দেশের সর্বপ্রথম স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী সরদার বল্লভ ভাই প্যাটেলকে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানান। এরপর তিনি রাষ্ট্রীয় একটা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত একটি প্যারেডে অংশ নেন।

তিনি বলেন, আজ ভারতের দিকে চোখ তুলে তাকানো মানুষদের মোক্ষম জবাব দেওয়ার জন্য সক্ষম আমাদের জওয়ানরা। আমাদের সীমান্তে এখন শয়ে শয়ে কিমি দীর্ঘ রাস্তা তৈরি হচ্ছে, একের পর এক ব্রিজ হচ্ছে, অনেক টানেল তৈরি হচ্ছে। নিজেদের অখণ্ডতা আর সন্মানের রক্ষার জন্য ভারতের ভূমি প্রস্তুত।

Back to top button