টাইমলাইনফুটবলখেলা

৭-০! কোস্তারিকাকে গোলের মালা পরিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু স্পেনের

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্ক: গ্রুপ ই-এর দ্বিতীয় ম্যাচে সমালোচকদের কড়া জবাব দিলেন স্পেনের কোচ লুইস এনরিকে। অনেকেই বিশ্বকাপ শুরুর আগে তার স্পেনের স্কোয়াডে নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। তার বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগে উঠেছিল ভক্তদের কাছ থেকে। কিন্তু গ্রূপ অফ ডেথের প্রথম ম্যাচে কোস্তারিকাকে কার্যত উড়িয়ে দিয়ে সেইসব সমালোচকদের আপাতত চুপ করিয়ে দিলেন স্প্যানিশ কোচ। প্রথম ম্যাচে ৭-০ ফলে জয় পেয়েছে এই অসাধারণ স্প্যানিশ দল।

কোস্তারিকা দলটার আগেও গ্রুপ অফ ডেথে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে। ২০১৪ বিশ্বকাপে উরুগুয়ে, ইতালি, ইংল্যান্ড সম্বলিত গ্রুপে পড়েছিল এই উত্তর আমেরিকার দলটি। সেখান থেকে বাকি সকলকে পেছনে ফেলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে পরের রাউন্ডে গিয়েছিল দলটি। ২০১৮ বিশ্বকাপে তাদের পারফরম্যান্স যথেষ্ট প্রশংসনীয় ছিল। কিন্তু চলতি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে চূড়ান্ত হতাশ করলেন কেইলোর নাবাসরা।

স্পেন দলটা মূলত তারুণ্য নির্ভর। সেই সঙ্গে মাঠে তাদের চালনা করার জন্য রয়েছেন কিছু অভিজ্ঞ ফুটবলারও। খেলার প্রথম মিনিট থেকেই বলের দখল নিজেদের কাছে রেখে প্রতিপক্ষকে চেপে ধরেছিল স্পেন। ফলস্বরূপ এগারো মিনিট এই কোস্তারিকার ডিফেন্সের ভুলে প্রথম গোল এলো ড্যানি ওলমোর পা থেকে। এরপর নাবাসের ভুলে আবারও গোল করে স্পেনকে এগিয়ে দেন মার্কো এসেন্সিও। ৩১ মিনিটে পেনাল্টি থেকে কল করে ম্যাচে কোস্তারিকার ফেরার সম্ভাবনা শেষ করে দেয় স্পেনের ফরোয়ার্ড ফ‍্যারান টোরেস।

দ্বিতীয়ার্ধেও ম্যাচের ছবিটা বদলায়নি। নিজের দ্বিতীয় গোলটি খেলা শুরুর কিছুক্ষণের মধ্যেই পেয়ে যান টোরেস। এরপর স্পেনের ইতিহাসের সর্বকনিষ্ঠ ফুটবলার হিসেবে বিশ্বকাপে গোল করেন বার্সেলোনার প্রতিভাবান মিডফিল্ডার পাবলো গাভী। পরিবর্তক হিসেবে নামা কার্লোস সোলার এবং মোরাতা আরো দুটি গোল করে কোস্তারিকার কফিনের শেষ পেরেকগুলি পুঁতে দেন।

আজকের এই বড় জয়ের মধ্য দিয়ে গ্রুপের অপর দুই দল জার্মানি এবং জাপানকে বার্তা পাঠিয়ে রাখল স্পেন। আজকেই দুই দল একে অপরের মুখোমুখি হয়েছিল এবং হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পরে জাপান জার্মানিকে হারিয়ে দিয়েছিল দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন করে। দুই দলই এরপরে স্পেনের বিরুদ্ধে নামার আগে অত্যন্ত সতর্ক থাকবে।

 

Related Articles