আন্তর্জাতিকটাইমলাইন

দুর্ঘটনায় স্ত্রী ও মেয়ে, ক্যান্সারে মারা যায় ছেলে; তবুও নিয়তির কাছে হার মানেন নি বাইডেন

জো বাইডেন (joe biden), পুরো নাম জোসেফ রবিনেট বাইডেন জুনিয়র। মার্কিন মুলুকের (USA) নব নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি। এর আগেও বারাক ওবামার জমানায় উপরাষ্ট্রপতির দ্বায়িত্ব সামলেছেন নিপুন হাতে। কিন্তু প্রেসিডেন্ট হওয়ার আগে জীবনযুদ্ধের দীর্ঘ পথ পেরিয়ে এসেছেন তিনি। আসুন জেনে নি তার সেই সংঘর্ষময় অতীতের কাহিনী

১৯৪২ সালের ২০ নভেম্বর পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যের স্ক্রানটনে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। বাবা জোসেফ রবিনেট বাইডেন সিনিয়র । মা ক্যাথরিন ইউজেনিয়া ফিনেগান আইরিশ বংশোদ্ভূত। আমেরিকার ডেলাওয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস ও রাষ্ট্রবিজ্ঞানের ছাত্র ছিলেন তিনি। ১৯৬৬ সালে সিরাকিউজ পড়াশোনা চলাকালীনই বিয়ে করেন নিলিন হান্টারকে। তিন সন্তান নিয়ে তাদের এই সুখের সংসার বেশিদিন স্থায়ী হয় নি। ১৯৭২ সালে ক্রিসমাস ট্রি কিনতে গিয়ে পথ দুর্ঘটনায় মারা যান স্ত্রী ও মেয়ে নাওমি।

এর পর মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন তিনি। কিন্তু কিছুদিনের মধ্যেই সেই অবসাদ কাটিয়ে উঠে জিল ট্রেসি জ্যাকবকে বিয়ে করেন ১৯৭৩ সালে। অবশ্য ততদিনে তিনি সিনেটর হয়ে গিয়েছেন। ১৯৭০ সালে ডেলাওয়ারের নিউ ক্যাসল কাউন্টির কাউন্সিলম্যান নির্বাচিত হন জো বাইডেন। তারপর ৭২ সালে মাত্র ৩০ বছর বয়সে নির্বাচিত হন৷ আমেরিকার ইতিহাসে পঞ্চম সর্বকণিষ্ঠ সিনেটর হিসাবে। মোট ছয়বার তিনি সিনেটর হন৷ আমেরিকার বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ আইন প্রণয়নে ভূমিকা রেখেছিলেন তিনি।

এরপর সালটা ২০০৯। মার্কিন মুলুকে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন বারাক ওবামা। এই যাত্রায় বারাকের সহযোগী ছিলেন বাইডেন। ২০০৯ থেকে ২০১৫, সহজাত দক্ষতায় নিজের পদের সম্মান অক্ষুণ্ণ রেখেছেন তিনি। তবে এর মধ্যেই ফের মৃত্যু হানা দিয়েছে তার জীবনে। ২০১৫ তেই মস্তিষ্কের ক্যান্সারে হারান বড় ছেলে বো বাইডেন। ২০১৬ সালের নির্বাচনে লড়েন নি তিনি। ২০২০ সালে তিনি পেয়েছেন আমেরিকার মসনদ। জো এর জীবন যেন আমাদের মতই অতি সাধারণ উত্থান পতনের জীবন৷ কিন্তু নিয়তিকে পালটা লড়াই দিতে জানেন জো। আর সেই লড়াইয়ে জিতেই আজ তিনি হোয়াইট হাউসের বাসিন্দা।

 

Back to top button