টাইমলাইনভারত

অনলাইন ক্লাস শেষ হতেই টাই দিয়ে ফাঁসি লাগিয়ে নেয় ক্লাস ফাইভের ছেলে

পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রকে (student)  ঘরের বাথরুমে টাই থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছে। থাতিপুর এলাকার দর্পণ কলোনির এই ঘটনায় ছড়িয়েছে চাঞ্চল্য। জানা যাচ্ছে, মৃত্যুর আগে ঐ ১১ বছরের বালক অনলাইন ক্লাসেও অংশ নিয়েছিলেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মামলাটি তদন্ত করছে।

শিশুর পিতা অলকেশ সাক্সেনা বলেন, সে পড়াশোনায় খুব চালাক ছিল। যোগার বিষয়ে ছিল ভীষণই আগ্রহ। সে সবসময় বৈদ্যুতিন পণ্য নিয়ে নতুন কিছু তৈরি করার জন্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা করত। জানা যাচ্ছে, সার্থক নামের ঐ বালক দুটি অনলাইন ক্লাসে যোগ দিত, প্রথমটি ছিল দুপুর দেড়টা থেকে দুপুর ২ টা পর্যন্ত, দ্বিতীয়টি বিকাল ৩ টা থেকে সাড়ে তিনটা পর্যন্ত চলত।

দিনের বেলা অনলাইন স্কুল ক্লাসে অংশ নেওয়ার পরেও সার্থক অনলাইন ভিডিও নিয়ে পড়াশোনা করত। সকলেই মনে করছে অনলাইন ক্লাসের পরে এমন কিছু ঘটেছিল তা হল শিক্ষার্থীকে আত্মহত্যার মতো পদক্ষেপ নিতে হয়েছিল।

উপ-পরিদর্শক আরপি বিশ্বাস বলেন, যে তাড়াহুড়োয় অনলাইন ক্লাসকে আত্মহত্যার মূল কারণ হিসাবে বিবেচনা করা যায় না। পুলিশ প্রতিটি কোণ থেকে পুরো মামলাটি তদন্ত করছে। পুলিশ লাশ পোস্টমর্টেমের জন্য পাঠিয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে কোনও সুইসাইড নোট পাওয়া যায়নি, এর পরে এখন থিথিপুর পুলিশ ও ফরেনসিক দল আত্মহত্যার কারণ অনুসন্ধান শুরু করেছে।

 

 

 

 

Back to top button