টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

‘হাত-পা ধরেও বাঁচবে না’, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে খোঁচা সুকান্ত মজুমদারের

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ সম্প্রতি, নীতি আয়োগ বৈঠকে যোগদানের পাশাপাশি অন্যান্য একাধিক কর্মসূচি নিয়ে দিল্লিতে পৌঁছে গিয়েছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর (Narendra Modi) সঙ্গে দীর্ঘ ৪৫ মিনিট ধরে বৈঠক হয় তাঁর। বৈঠকের শুরুতেই হলুদ গোলাপের তোড়া দেওয়ার পাশাপাশি বাংলার মিষ্টিও তুলে দেন প্রধানমন্ত্রীর হাতে। তবে এসব প্রয়াস তো দূরের কথা, হাত-পা ধরেও কেউ বাঁচতে পারবে না বলে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশ্য এদিন খোঁচা মারলেন বিজেপির (BJP) রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার (Sukanta Majumdar)।

এদিন দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা দিতে চলেছেন বিজেপি সাংসদ। তার পূর্বে মোদী-মমতা বৈঠক প্রসঙ্গে তিনি জানান, “প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যেকোনও মুখ্যমন্ত্রী বৈঠক করতে পারেন। পিনারাই বিজয়নের সঙ্গে বিজেপির নীতিগত দিক থেকে পার্থক্য থাকলেও নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। এতে কোনও অন্যায় নেই। তবে বৈঠকে যদি কেউ হাত কিংবা পা ধরে বাঁচতে চায়, তাহলে তা হবে না।”

উল্লেখ্য, এদিন বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে পৌঁছে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দীর্ঘ ৪৫ মিনিট ধরে চলে কথোপকথন। বর্তমানে রাজ্যের বিরোধী দলগুলি একে তৃণমূল-বিজেপি আঁতাত বলে আখ্যা দিয়েছে। যে মুহূর্তে চাকরি দুর্নীতি মামলায় ইডি এবং সিবিআই তদন্তের মাঝে ক্রমশ দেওয়ালে পিঠ ঠেকে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেসেরজ সেই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মমতার এই বৈঠক আসলে তদন্তকে ধামাচাপা দেওয়ার কৌশল বলে কটাক্ষ ছুড়ে দিয়েছে বিরোধী দলগুলি। অবশ্য এক্ষেত্রে তৃণমূল তাদের সে সকল অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে। একই সুর বিজেপির গলায়।

সুকান্ত মজুমদার এদিন বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠক কোনো আশ্চর্যের ব্যাপার নয়। তবে এই বৈঠক করে কাউকে বাঁচানো যাবে না।” অপরদিকে, ঘাসফুল শিবিরের দাবি, “বিভিন্ন প্রকল্পে বকেয়া টাকা পড়ে থাকার পাশাপাশি ট্যাক্স বাবদ রাজ্যের প্রাপ্য অর্থ এখনো পর্যন্ত দেয়নি কেন্দ্র। এছাড়াও প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা এবং সড়ক যোজনা সহ একশো দিনের কাজেও একাধিক বাধা-বিপত্তির সৃষ্টি হয়েছে, এ সকল বিষয়টি তুলে ধরার জন্যই দিল্লিতে রওনা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।” তবে দাবি ও পাল্টা দাবি মাঝে বাংলা সহ দেশের রাজনীতিতে প্রধানমন্ত্রী-মুখ্যমন্ত্রী বৈঠকের কি প্রভাব পড়ে, সেদিকে তাকিয়ে সকলে।

Related Articles

Back to top button