টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

কলকাতায় কেষ্ট কন্যা, হাজিরা দেবেন হাইকোর্টে? রয়েছে ধন্দ

বাংলাহান্ট ডেস্ক : রাতারাতি সংবাদের শিরোনামে এখন কেষ্টকে (Anubrata Mandal) সরিয়ে এসে গেছে তাঁর মেয়ে সুকন্যা। তাই সুকন্যা মণ্ডল (Suknya Mandal) কী করেন সেদিকেই নজর সকলের। জানা যাচ্ছে, নিচুপট্টির বাড়ি থেকে বেরিয়ে গাড়িতে কলকাতার উদ্দেশে রওনা দেন অনুব্রত-কন্যা। সকাল সাড়ে ৮টা নাগাদ কলকাতার উদ্দেশে রওনা দিলেন তিনি।

আজ বৃহস্পতি বারই সুকন্যাকে আদালতে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি অভিজিত গঙ্গোপাধ্যায়। বুধবার বিকেলে কলকাতা হাই কোর্টে সুকন্যার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়। বলা হয় টেট পরীক্ষা না দিয়েই সুকন্যা প্রাথমিক স্কুলে শিক্ষিকার চাকরি পেয়ে যান। পাশাপাশি অভিযোগ ওঠে সুকন্যা না কি কোনও দিন স্কুলেই যাননি। কিন্তু মাস গেলে বেতনটা ঠিক পেয়ে যান বাড়িতে বসেই। এমনকি স্কুলের রেজিস্টার খাতা নিয়ে অনুব্রতের বাড়িতে সুকন্যার স্বাক্ষর নেওয়ার জন্য স্কুলের কর্মচারীদের ছুটে আসা হত বলেও অভিযোগ করা হয়। সুকন্যার নামের একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্টে আবার লেখা আছে সরকারি চাকরির পাশাপাশি একটি বেসরকারি চাকরিও নাকি করেন তিনি।

আইনজীবী ফিরদৌস শামিম বলেন, টেট পরীক্ষায় না বসেই সুকন্যা প্রাথমিকে চাকরি পেয়ে যান। তাঁর নিয়োগ হয় বোলপুর ওয়েস্ট সার্কেলের কালিকাপুর প্রাইমারি স্কুলে। আদালতে ফিরদৌস আরও বলেন, ‘স্কুলের রেজিস্টার খাতা অনুব্রতের বাড়িতে নিয়ে গিয়ে তাঁর মেয়ের হাজিরা নিয়ে আসতে হতো স্কুলের কর্মচারীদের।’ এমনকি, শুধু সুকন্যাই নন, অনুব্রতর ঘনিষ্ঠ আরও অনেকে এবং অনেক আত্মীয়ও চাকরি পেয়েছেন বলে আদালতে অভিযোগ জানান ফিরদৌস।

অভিযোগ ওঠার পরই সুকন্যাকে আদালতে তলব করেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। তাঁর নিয়োগ সংক্রান্ত সমস্ত নথি নিয়ে আজ বৃহস্পতি বারই তাঁর কলকাতা হাই কোর্টে হাজিরা দেওয়ার কথা। দুপুর ৩টের মধ্যে তাঁকে আদালতে এসে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি।

তবে, জানা যাচ্ছে, সুকন্যা সরাসরি কলকাতা হাই কোর্টে না গিয়ে চিনার পার্কের বাড়ি হয়ে তারপর হাই কোর্টে পৌঁছতে পারেন।

Related Articles