টাইমলাইনভাইরালভারত

কোনারকের সূর্য মন্দিরে ছিল এই রহস্যময় বস্তু, যার কারনে এই মন্দিরকে বলা হত ‘ব্ল্যাক প্যাগোডা’

পুরীর জগন্নাথ মন্দিরের (Jagannath temple puri) পাশাপাশি কোনারকের সূর্য মন্দিরও (sun temple konark)  ওড়িশার একটি অতি জনপ্রিয় ভ্রমণস্থল। ভগ্নপ্রায় হলেও এই মন্দিরটি এখনো দর্শকদের মধ্যে বিস্ময় জানায়। কে কবে এই মন্দির তৈরি করিয়েছিল তা নিয়ে এখনো নিঃসন্দেহ নন অনেকেই। পুরাণ মতে শ্রীকৃষ্ণ এর পুত্র শাম্ব এই মন্দির তৈরি করিয়েছিলেন।আবার ইতিহাস অনুসার প্রথম নরসিমা দেব এই মন্দির তৈরি করিয়েছিলেন। তবে এই মন্দিরের সাথে যুক্ত রয়েছে আরো একটি রহস্য। কেন প্রাচীন কালে এই মন্দিরকে ‘ব্ল্যাক প্যাগোডা’ বলা হত তাই আজকে আমরা জানব।

sun Temple, konark

লাল বেলেপাথর এবং কালো গ্রানাইট পাথর দিয়ে তৈরি এই মন্দিরটি এখনও অবধি রহস্য হয়ে আছে। কোনার্কের মূল মন্দিরটি তিনটি মণ্ডপে গঠিত। এর মধ্যে দুটি মণ্ডপ ধসে গেছে। একই সময়ে, তৃতীয় মণ্ডপে যেখানে প্রতিমা স্থাপন করা হয়েছিল, ব্রিটিশরা স্বাধীনতার আগে বালু ও পাথর ভরাট করেছিল এবং সমস্ত গেট স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দিয়েছিল, যাতে মন্দিরটি আর ক্ষতিগ্রস্থ না হয়।

সমুদ্রযাত্রীরা এই মন্দিরটিকে ‘ব্ল্যাক প্যাগোডা’ হিসাবে ডাকতেন। যার কারণ হিসাবে বিশ্বাস করা হয় এই মন্দির জাহাজ টেনে নিয়ে ধ্বংস করে দির। এর পিছনে প্রচুর পৌরাণিক কাহিনী প্রচলিত রয়েছে। কথিত আছে যে এই মন্দিরের চূড়ায় একটি ৫২ টন চুম্বক ছিল, যা জাহাজকে তীরের দিকে টেনে এনে ধ্বংস করে দিত। এই চুম্বকের মারন শক্তির জন্যই একে ‘ব্ল্যাক প্যাগোডা’ ডাকা হত। বলা হয় নাবিকরা এই চুম্বকটি ধ্বংস করেন।

কাহিনী অনুসারে, ৫২ টনের পাথরটি মন্দিরে কেন্দ্রীয় পাথর হিসাবে কাজ করত, এটি সরিয়ে নিয়ে যাওয়া মতান্তরে ভেঙে ফেলায় মন্দিরের দেয়ালের ভারসাম্য নষ্ট হয়ে যায় এবং এর ফলে দেয়ালগুলি ধসে পড়ে। তবে কোনো ঐতিহাসিক প্রমাণ এই ঘটনা সিদ্ধ করে না।

 

Back to top button