টাইমলাইনবিনোদন

গুণের শেষ নেই, দেশের গর্ব মিস ইউনিভার্স সুস্মিতা সেনকেও সবার সামনে অপমান করেছিলেন মহেশ ভাট!

বাংলাহান্ট ডেস্ক: বলিউডি দর্শকরা নতুন করে চিনছে পরিচালক মহেশ ভাটকে (Mahesh Bhatt)। তাঁর একাধিক কীর্তির কথা আগেই প্রকাশ‍্যে এসেছিল। তবে বছ‍র দুই আগে থেকে বিষ্ফোরক সব সত‍্য ফাঁস হয় বর্ষীয়ান এই পরিচালক সম্পর্কে। এবার অভিনেত্রী তথা বিশ্বসুন্দরী সুস্মিতা সেন (Sushmita Sen) জানালেন, মহেশ ভাট তাঁকেও সর্বসমক্ষে অপমান করেছিলেন।

সম্প্রতি টুইঙ্কল খান্নার অনুষ্ঠানে কথার মাঝে সেই অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন সুস্মিতা। তিনি অভিনয় করতে পারেননি বলে যা নয় তাই বলে অপমান করেছিলেন মহেশ। সে সময়ে সদ‍্য মিস ইউনিভার্সের তকমা জিতেছেন সুস্মিতা। তার দু বছর পর ১৯৯৬ সালে মহেশ ভাট পরিচালিত ‘দস্তক’ ছবির হাত ধরে অভিনয় তথা বলিউডে পা রেখেছিলেন তিনি।


এই ঘটনা সে ছবিকে কেন্দ্র করেই। সুস্মিতা বলেন, তিনি অভিনয়ের কিছুই বুঝতেন না। সবকিছু তাঁর কাছে নতুন ছিল। স্বাভাবিক ভাবেই মহেশ ভাটের পছন্দ হয়নি আনকোড়া সুস্মিতার অভিনয়। সেজন‍্য সর্বসমক্ষে, সংবাদ মাধ‍্যম এবং প্রযোজনা সংস্থার লোকদের সামনেই চিৎকার করে অপমান করেছিলেন তিনি অভিনেত্রীকে।

তীব্র ভর্ৎসনা করে প্রশ্ন করেছিলেন, “কী নিয়ে এসেছো? ক‍্যামেরার সামনে মিস ইউনিভার্সের মতো ভাব দেখাচ্ছো!” অপমানিত হয়ে কাঁদতে শুরু করেছিলেন সুস্মিতা। তিনি বলেছিলেন, তিনি যে অভিনয় পারেন না সেটা তো আগেই বলেছিলেন মহেশ কে। তা সত্ত্বেও তাঁকে ডাকা হল কেন?


রেগেমেগে সেট থেকে বেরিয়ে যাচ্ছিলেন সুস্মিতা। পেছন থেকে এসে অভিনেত্রীর হাত চেপে ধরেন মহেশ। পালটা সুস্মিতা বলে ওঠেন, তিনি ওভাবে কথা বলতে পারেন না তাঁর সঙ্গে। কিন্তু মহেশ ভাট তাঁকে অবাক করে দিয়ে তাঁর হাত খামচে ধরে বলেন, “এটা রাগ‌। এটাই ক‍্যামেরার সামনে দেখাও।”

সেটাই করেছিলেন সুস্মিতা। তিনি বলেন, মহেশ ভাট সত‍্যিই একজন দারুন পরিচালক। যেটা চান সেটা নিয়েই ছাড়েন সে যেভাবেই হোক। নিজের ব‍্যক্তিগত জীবন সম্পর্কেও মুখ খুলেছেন সুস্মিতা। জীবনে দারুন সব মানুষের সঙ্গে আলাপ হয়েছে তাঁর। কিন্তু এক সময় না এক সময় সবাই তাঁকে হতাশ করেছে। সুস্মিতার বিশ্বাস, ঈশ্বর তাঁকে প্রতিবার রক্ষা করেছেন বলেই ভুল বৈবাহিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েননি তিনি।

Related Articles