পশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

হাতে জাতীয় পতাকা, সঙ্গীর কপালে গেরুয়া তিলক, তমলুকে শুভেন্দুর পদযাত্রা চিন্তা বাড়াল তৃণমূলের

বাংলা হান্ট ডেস্ক: গত কয়েকদিনের টালবাহানার পর গত ১ তারিখ জানা গিয়েছিল তৃণমূলেই থাকবেন শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Addhikari)। কিন্তু গতকালি ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে তিনি জানিয়ে দেন তৃণমূলের (TMC)সঙ্গে কাজ করা তাঁর সম্ভব নয়। আর আজ তমলুকে অনুগামীদের নিয়ে বিশাল পদযাত্রা করলেন সদ্য প্রাক্তন পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। হাতে তৃণমূলের নয়, জাতীয় পতাকা নিয়েই মিছিল করেন তিনি।

আজ বিপ্লবী ক্ষুদিরাম বসুর জন্মদিন উপলক্ষ্যে এই পদযাত্রা তিনি করেন বলে জানা গিয়েছে। তমলুকের হাসপাতাল মোড়ে ক্ষুদিরাম বসুর মূর্তিতে মাল্যদান করে পদযাত্রা শুরু করেন তিনি। সঙ্গে ছিলেন কয়েকশো অনুগামী। কিন্তু কারও হাতেই তৃণমূলের পতাকা ছিল না। সাদা পাঞ্জাবি পরে শুভেন্দু অধিকারী মিছিলের আগে থাকলেও বিশেষ বার্তা দিলেন তাঁর সঙ্গী কণিষ্ক পাণ্ডা। তাঁর মুখে আবার গেরুয়া মাস্ক, কপালে গেরুয়া তিলক, বর্তমান রাজ্য রাজনীতিটি এই সাজ যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।

আজ যদিও তমলুকে নয়, আগে কাঁথি যাওয়ার কথা ছিল শুভেন্দুর। কিন্তু সেখানে তিনি যাননি। তার পরিবর্তে তমলুক থেকে গড়বেতায় যাবেন শুভেন্দু। উল্লেখ্য, ১ তারিখের বৈঠক নিয়ে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়কে গতকাল প্রথম প্রতিক্রিয়া দেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি সৌগত রায়কে হোয়াটস অ্যাপ করে জানিয়ে দেন যে, একসাথে কাজ করা সম্ভব নয়। শুভেন্দু অধিকারীর এই হোয়াটসঅ্যাপ ম্যাসেজের খবর সামনে আসতেই রাজ্য রাজনীতি আবারও তোলপাড় হয়ে যায়।

শুভেন্দু অধিকারীর সুত্র অনুযায়ী, সেদিনের বৈঠকে যে প্রশান্ত কিশোর আর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় উপস্থিত থাকবেন সেটা জানতেনই না তিনি। সৌগত রায় আর সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে বৈঠক শুরু হওয়ার কিছুক্ষণ পরেই আচমকাই ঢুকে পড়েন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় আর প্রশান্ত কিশোর। এরপর সৌগত রায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফোন করে শুভেন্দু অধিকারীর সাথে কথা বলিয়ে দেন বলে সুত্রের খবর। দুজনের মধ্যে ফোনে সৌজন্যমূলক কথাবার্তা হয়। এর বেশি বৈঠকে আর একটিও কথা বলেননি প্রাক্তন পরিবহণ মন্ত্রী।

Back to top button